kalerkantho

লিপার স্বপ্নের শুরু

১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



লিপার স্বপ্নের শুরু

পেশাদার ক্যারিয়ার শুরুর মাত্র চার বছরের মধ্যেই গ্র্যামি। ১০ ফেব্রুয়ারি ৬১তম গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডসে সেরা নবাগত শিল্পীর পুরস্কার জিতেছেন ডুয়া লিপা। ২৩ বছর বয়সী এই ব্রিটিশ গায়িকাকে নিয়ে লিখেছেন লতিফুল হক

 

গানে তো বটেই, ডুয়া লিপার অভিনয় ক্যারিয়ার নিয়েও বাজি ধরা যায়। হালে লেডি গাগার অভিনয় নিয়ে ব্যাপক প্রশংসার পর অনেক গায়িকাই অভিনয়ে নিয়মিত হওয়ার পরিকল্পনা করছেন। সেই তালিকায় আছেন লিপাও। অন্য রকম চেহারার কারণে পরিচালকদেরও পছন্দের তালিকায় আছেন তিনি। লিপার চেহারাটা ঠিক ব্রিটিশ টাইপ না। হবেই তো, কারণ তাঁর মা-বাবাও ব্রিটিশ নন। বাবা কসোভোর, মা বসনিয়ার। সেখান থেকে ১৯৯২ সালে ব্রিটেনে থিতু হন, লিপার জন্মও সেখানে। মা-বাবা গানের মানুষ নন, সংগীত দুনিয়ার প্রতি লিপার আগ্রহ জন্মে স্কুলে পড়ার সময়। ১৪ বছর বয়স থেকে পছন্দের শিল্পীদের কাভার সং গেয়ে ইউটিউবে প্রকাশ করতে থাকেন। প্রিয় শিল্পী বলতে লিপা মূলত পিংক আর নেলি ফারটাডোর গান গাইতেন। এই গানগুলো জনপ্রিয়তা পাওয়ার পর আত্মবিশ্বাস তৈরি হয়, গায়িকা হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে ১৫ বছর বয়সে লন্ডনে চলে যান। সে সময় পড়ার পাশাপাশি খরচ চালাতে মডেলিং আর রেস্টুরেন্টে চাকরি করতেন। গানের জগতে তেমন সুবিধা করতে পারছিলেন না, গায়িকা হওয়া মনে হচ্ছিল অনেক দূরের স্বপ্ন। হঠাত্ই সুযোগ মিলে যায় রিয়ালিটি শো ‘দ্য এক্স ফ্যাক্টর’-এ। প্রতিযোগিতার শীর্ষস্থান না পেলেও গান নিয়ে আলোচিত হন, নজর কাড়েন রেকর্ডিং কম্পানিগুলোর। ২০১৫ সালে কাজ শুরু করেন প্রথম অ্যালবামের। এর মধ্যে দুটি সিঙ্গলও প্রকাশ করেন। ব্রিটেনে তত ভালো না করলেও বেলজিয়াম, পোল্যান্ড, স্লোভাকিয়ার মতো দেশগুলোর টপ চার্টে সেরা দশে জায়গা করে নেয় দ্বিতীয় সিঙ্গল ‘বি দ্য ওয়ান’। সাফল্যে উচ্ছ্বসিত লিপা ২০১৬ সালে শুরু করেন প্রথম ইউরোপ ট্যুর। ২০১৭ সালে প্রকাশ পায় প্রথম অ্যালবাম ‘ডুয়া লিপা’। অ্যালবামটির জন্য পাঁচ ক্যাটাগরিতে ব্রিট অ্যাওয়ার্ডসে মনোনয়ন পান। ব্যাবসায়িকভাবে ব্যাপক সাফল্য পায় অ্যালবামটি। এ ছাড়া বেশ কয়েকটি হিট সিঙ্গলও আছে গায়িকার। বিশেষ করে ক্যালভিন হ্যারিসের সঙ্গে ‘ওয়ান কিস’ ইউকে টপ চার্টের শীর্ষে ছিল, আরেকটি সিঙ্গল ‘ইলেকট্রিসিটি’ গ্র্যামিতে সেরা ডান্স রেকর্ডিং হিসেবে পুরস্কার পায়। লিপা নিজে জেতেন সেরা নবাগত গায়িকার পুরস্কার। সমালোচকরা এর মধ্যে রায় দিয়েছেন, আগামী কয়েক বছরের মধ্যে শীর্ষ গায়িকাদের একজন হবেন তিনি। লিপা অবশ্য মনে করেন, সেটা এখনো দূরের পথ। ‘আমি অনেক কষ্ট করে এই জায়গায় এসেছি, জানি সেরা হতে গেলে কতটা ধৈর্য আর পরিশ্রম লাগে। একটা পুরস্কার পেয়েই সব পেয়ে যাইনি, সামনের চ্যালেঞ্জ আরো কঠিন। তবে সেরা নবাগত হিসেবে পুরস্কার পাওয়াটা দারুণ, এটা নিজেকে পরের ধাপে নিয়ে যাওয়ার একটা বড় সুযোগ,’ বলেন তিনি।

গেল বছরের মাঝামাঝিতেই লিপা জানিয়েছিলেন, ২০১৯ সালেই তাঁর দ্বিতীয় অ্যালবাম আসবে। আপাতত বেশি পরীক্ষা-নিরীক্ষা চান না, প্রথম অ্যালবামের গানের মতোই গান রাখতে চান।

 

মন্তব্য