kalerkantho

এবার আট

‘ওশান’ ট্রিলজি শেষ হওয়ার পর নতুন রূপে আসছে চোরের দল। তবে এবারের চোরদের সবাই নারী, সংখ্যা নেমে এসেছে আটে। ‘ওশান’স এইট’ নিয়ে লিখেছেন হাসনাইন মাহমুদ

৭ জুন, ২০১৮ ০০:০০



এবার আট

২০০১ সালে নতুন করে বানানো ‘ওশান’ সিরিজের প্রথম চলচ্চিত্র ‘ওশান’স ইলেভেন’ মুক্তির সঙ্গে সঙ্গেই ঝড় তোলে। বক্স অফিসে সাফল্যের পাশাপাশি আমেরিকাজুড়ে স্টাইল আইকনে পরিণত হয় চলচ্চিত্রটির অভিনেতারা। জর্জ ক্লুনি, ম্যাট ডেমন, ব্র্যাড পিট, জুলিয়া রবার্টসের মতো তারকারা ছিলেন ছবিতে। পরে এ সিরিজের আরো দুটি কিস্তি মুক্তি পায়, বক্স অফিসেও পায় সাফল্য। প্রায় এগারো বছর পর বড় পর্দায় আবারও ফিরছে চোরের দল, তবে একটু ভিন্নভাবে। ‘ওশান’স এইট’-এ চোরেরা যে সবাই নারী! ‘হাঙ্গার গেমস’খ্যাত পরিচালক গ্যারি রস পরিচালিত ছবিটির প্রধান চরিত্র ডেবি ওশেন। সম্পর্কে তিনি পূর্ববর্তী চলচ্চিত্রগুলোতে জর্জ ক্লুনি অভিনীত ড্যানি ওশানের বোন। ভাইয়ের কর্মকাণ্ডে উত্সাহী হয়ে এবার ডেবি পরিকল্পনা করেন নিউ ইয়র্কের বিখ্যাত ‘মেট গালা’ অনুষ্ঠানে চুরি করার। যেখানে নামকরা অনেক ব্যবসায়ীর পাশাপাশি থাকবে হলিউডের অনেক বড় তারকারাও। এ জন্য তিনি গড়ে তোলেন আটজনের এক চোরের দল। ডেবি ওশেন চরিত্রটিতে অভিনয় করেছেন অস্কারজয়ী অভিনেত্রী স্যান্ড্রা বুলক। এ ছাড়া আরো অভিনয় করেছেন কেট ব্ল্যানচেট, অ্যান হ্যাথাওয়ে, রিহানা, হেলেনা বোনহ্যাম কার্টার, ড্যাকোটা ফেনিংয়ের মতো তারকারা। পূর্ববর্তী ট্রিলজি থেকে এবার শুধু এলিয়ট গোল্ড, ম্যাট ডেমন এবং কার্ল রেইনারকে দেখা যাবে, তাও খুব অল্প সময়ের জন্য।

আগের ছবিগুলো স্টিভেন সোডারবার্গ পরিচালনা করলেও এবার দেখা যাবে গ্যারি রসকে। নারীকেন্দ্রিক চলচ্চিত্রে নিজের মুনশিয়ানার পরিচয় দিয়ে তিনি ‘হাঙ্গার গেমস’ সিরিজকে অভাবনীয় সাফল্য এনে দিয়েছেন। তাই স্টিভেন সোডারবার্গও ভরসা রাখছেন গ্যারি রসের ওপর। চলচ্চিত্রটিতে শুরুতে ‘হাঙ্গার গেমস’ তারকা জেনিফার লরেন্সেরই অভিনয়ের কথা ছিল। কিন্তু সময় মেলাতে না পারায় পারেননি। তবে যাদের শেষ পর্যন্ত পাওয়া গেছে তাদের নিয়েই খুশি চিত্রনাট্যকার ওলিভিয়া মিচ, ‘অসাধারণ অভিনয় প্রতিভা আর গ্যারির পরিচালনার সমন্বয় হয়েছে। আমার চিত্রনাট্যকে অসাধারণভাবে ব্যবহার করা হয়েছে।’

ছবিটি নিয়ে খুশি পাত্র-পাত্রীরাও। গায়িকা-অভিনেত্রী রিহানার উত্তেজনা তো কয়েক ধাপ ওপরে। সামাজিক মাধ্যম ব্যবহার করে তিনি তাঁর ভক্তদের আমন্ত্রণ জানাচ্ছেন চলচ্চিত্রটি দেখার জন্য। প্রেক্ষাগৃহে দর্শক কমে যাওয়ায় চলচ্চিত্রটির সাফল্য নিয়ে অনেকেই সন্দিহান। তবে সেসব অমূলক বলে উড়িয়ে দিয়েছেন স্যান্ড্রা বুলক। তাঁর মতে, ‘ওশান’ সিরিজ প্রেক্ষাগৃহে থাকলে দর্শক আসবেই।

তবে ছবিটি নিয়ে বিতর্কও কম হয়নি। চলচ্চিত্রটির চিত্রায়ণের সময়ে সংবাদমাধ্যমে কুশলীদের মধ্যে হাতাহাতির খবর ছড়িয়ে পড়ে, যা নিয়ে পরে জল ঘোলা হয়েছে বিস্তর। যদিও এমন সংবাদকে গুজব বলেই উড়িয়ে দিয়েছেন অ্যান হ্যাথাওয়ে, ‘আসলে মিডিয়াই চাচ্ছিল যাতে আমরা একে অপরের সঙ্গে লড়াই করি। বাস্তবে সেটা হয়নি। বরং পরস্পরের প্রতি ভালোবাসা আর শ্রদ্ধাবোধ ছবিটিকে অন্য মাত্রায় নিয়ে গেছে।’  



মন্তব্য