kalerkantho


ঈদ ঘিরে খণ্ডকালীন চাকরি

ঈদ সামনে রেখে খণ্ডকালীন বিক্রয়কর্মী নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে তৈরি পোশাক ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের ব্র্যান্ডশপ বা আউটলেটে। এইচএসসি বা স্নাতক পড়ুয়া হলেই আবেদন করা যাবে। বিস্তারিত জানাচ্ছেন ফরহাদ হোসেন

১১ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



ঈদ ঘিরে খণ্ডকালীন চাকরি

ছবি : কাকলী প্রধান, কৃতজ্ঞতা : বিশ্ব রঙ

আড়ং

ঢাকাসহ সারা দেশের আউটলেটগুলোতে ২৫০০ সেলস অ্যাসোসিয়েট নিয়োগ দেবে আড়ং। প্রতিষ্ঠানটির মানবসম্পদ বিভাগের এইচআর ম্যানেজার মো. গোলাম সাকলাইন জানান, ন্যূনতম এইচএসসি পাস এবং স্নাতকপড়ুয়ারা সিভি জমা দিতে পারবে। পরিপাটি, গুছিয়ে কথা বলায় দক্ষরা অগ্রাধিকার পাবে। ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত প্রার্থীরা আড়ংয়ের যেকোনো আউটলেটে নির্ধারিত সিভি বক্সে সিভি জমা দিতে পারবেন। সেলস অ্যাসোসিয়েটকে দৈনিক সাড়ে পাঁচ ঘণ্টা করে কাজ করতে হবে। রয়েছে শিফট সুবিধা। নিয়োগপ্রাপ্তরা ঘণ্টা হিসেবে বেতন পাবে। বেতন ঠিক করা হবে আলোচনার মাধ্যমে।

 

অ্যাপেক্স

অ্যাপেক্সের সহকারী মহাব্যবস্থাপক লুত্ফুন নাহার জয়া জানান, সারা দেশের আউটলেটগুলোতে প্রায় ২০০০ খণ্ডকালীন কর্মী নিয়োগ দেওয়া হবে। এর ৭০ শতাংশ নিয়োগ দেওয়া হবে এক মাসের জন্য। বাকি ৩০ ভাগ ১০ বা ১৫ দিনের জন্য। ন্যূনতম এসএসসি পাস হলেই আবেদন করা যাবে। তবে বয়স হতে হবে কমপক্ষে ১৮ বছর। ছেলেদের পাশাপাশি মেয়েদেরও আবেদনে উৎসাহ দেয় অ্যাপেক্স। ২৫ এপ্রিলের মধ্যে প্রধান কার্যালয় বা নিকটস্থ আউটলেটে নির্ধারিত বক্সে সিভি জমা দিতে হবে। বাজারের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে বেতন ঠিক করা হবে। নিয়োগের আগে ১৫ দিনের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। এ সময়ও বেতন-ভাতা পাওয়া যাবে।

লুত্ফুন নাহার জয়া জানান, অ্যাপেক্স সাধারণত আলাদাভাবে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয় না। ঈদ সামনে রেখে খণ্ডকালীন কাজ করা কর্মীদের মধ্য থেকেই সারাবছর নিয়োগ দেওয়া হয়।

 

ইনফিনিটি-রিচম্যান-লুবনান

ইনফিনিটি-রিচম্যান-লুবনানের মার্কেটিং অ্যান্ড অপারেশন ম্যানেজার নাজমুস সাদাত জানান, সারা দেশে ইনফিনিটি-রিচম্যান-লুবনানের ৯৫টি আউটলেট রয়েছে। এসব আউটলেটে এক মাসের প্যাকেজ প্রগ্রামে সেলস এক্সিকিউটিভ পদে প্রায় ৩৫০ কর্মী নিয়োগ করা হবে। এইচএসসি পাস হলেই সিভি জমা দেওয়া যাবে। তা ছাড়া বিবিএ বা স্নাতক পড়ছে এমন প্রার্থীরাও সিভি দিতে পারবে। বাচনভঙ্গি, স্মার্টনেস, ইংরেজি দক্ষতা ও কাজ করার আগ্রহ দেখা হবে। সিভি জমা দেওয়া যাবে রমজান শুরুর এক সপ্তাহ আগ পর্যন্ত। হেড অফিস এবং সব শোরুমে সিভি জমা দেওয়া যাবে। যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতাভেদে বেতন দেওয়া হবে ১৩ হাজার থেকে ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত।

বিশ্ব রঙ

এইচএসসি পাস হলেই সেলস এক্সিকিউটিভ

পদে আবেদন করা যাবে। স্মার্টনেস ও গুছিয়ে কথা বলার দক্ষতা দেখা হবে। যেকোনো আউটলেটে সিভি জমা দেওয়া যাবে ৫ মে থেকে ১৫ মে পর্যন্ত। বিশ্ব রঙের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ দেবাশীষ দাস জানান, ঢাকা ও ঢাকার বাইরের আউটলেটগুলোর জন্য ৭০-৮০ জন নিয়োগ দেওয়া হবে। নতুনদের দৈনিক ২৫০ টাকা এবং সঙ্গে ইফতার ও নাইট অ্যালাউন্স দেওয়া হবে। সব মিলিয়ে একজন নতুন কর্মী প্রায় ১০ হাজার টাকা আয় করতে পারবেন। অভিজ্ঞদের বেতন নির্ধারণ করা হবে আলোচনার মাধ্যমে।

 

কে ক্রাফট

কে ক্রাফটের ম্যানেজার সেলস এ এম সেলিম উল্লাহ জানান, ২৩টি শাখায় প্রায় ১৫০ জন সেলস এক্সিকিউটিভ নেওয়া হতে পারে। ৪৫ দিন, ৪০ দিন এবং ৩০ দিনের প্যাকেজে এ কর্মী নেওয়া হবে। যোগ্যতা ন্যূনতম এইচএসসি। কে ক্রাফটের অফিসে বা যেকোনো শোরুমে সিভি জমা দেওয়া যাবে। দৈনিক ৩০০ টাকা হারে বেতন দেওয়া হবে। তবে বেশি যোগ্য প্রার্থীর বেতন নির্ধারণ করা হবে আলোচনা সাপেক্ষে।

 

রঙ বাংলাদেশ

রঙ বাংলাদেশের অ্যাডমিন অ্যান্ড এইচআর ম্যানেজার অজিত কুমার সরকার জানান, ২২টি শোরুমে ৫০ জন বিক্রয়কর্মী নেওয়া হবে। এইচএসসি পাস হলেই সিভি জমা দেওয়া যাবে ১০ রোজা পর্যন্ত। নতুন ও অভিজ্ঞ—এই দুই ধরনের কর্মীই নেওয়া হবে। বাছাইয়ে দেখা হবে আউটলুক, উচ্চতা, ঘুছিয়ে কথা বলার দক্ষতা। নতুনরা দৈনিক ২৫০-২৮০ টাকা ও দক্ষদের বেতন আলোচনার মাধ্যমে ঠিক করা হবে।

 

অঞ্জন’স

২৩টি শাখায় সেলস এক্সিকিউটিভ পদে ২৫০ জন নিয়োগ দেবে অঞ্জন’স। যোগ্যতা এইচএসসি। অভিজ্ঞদের বেলায় এসএসসি পাসরাও সুযোগ পাবে। অঞ্জন’স-এর মার্কেটিং ম্যানেজার সামজেদুল হক সামু জানান, রমজান শুরুর ১৫ দিন আগ পর্যন্ত সিভি জমা দেওয়া যাবে সব শোরুমে। আগে কাজের অভিজ্ঞতা থাকলে সিভিতে উল্লেখ করতে হবে। বাছাইয়ের সময় দেখা হবে কাজের অভিজ্ঞতা, বুদ্ধিমত্তা, কাজের আগ্রহ। নতুনদের বেতন পড়বে ১২ থেকে ১৩ হাজার এবং অভিজ্ঞদের পড়বে ১৫ হাজার টাকা।

 

লা রিভ

লা রিভের সেলস কো-অর্ডিনেটর জুনায়েদ ইমন জানান, এক মাসের প্রগ্রামে ১৫টি আউটলেটে ৪০০ কর্মী নেওয়া হবে। ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা এইচএসসি। ১৫ এপ্রিল থেকে ২০ মের মধ্যে সিভি জমা দেওয়া যাবে যেকোনো আউটলেটে। সেলসে কাজ করেছে, এমন প্রার্থীদের অগ্রাধিকার। ভাইভার মাধ্যমে প্রার্থী বাছাই করা হবে। ভালো কাজ দেখাতে পারলে স্থায়ীভাবে কাজের সুযোগ মিলবে। বেতন আলোচনার মাধ্যমে নির্ধারণ করা হবে।

 

দর্জিবাড়ী

৩৬টি আউটলেটে ২০০ জন সেলসকর্মী নেওয়া হবে। যোগ্যতা এইচএসসি। অভিজ্ঞদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত সিভি জমা দেওয়া যাবে দর্জিবাড়ীর প্রধান কার্যালয় এবং যেকোনো শোরুমে। ইফতারি, নাশতা, সেলস কমিশনসহ একজন কর্মী এক মাসে ২০-২২ হাজার টাকা উপার্জন করতে পারবে।

 

দেশী দশ

দেশী দশের গুলশান ব্রাঞ্চের ইনচার্জ দীনেশ চন্দ্র মণ্ডল জানান, পাঁচ আউটলেটে ১২০ জন খণ্ডকালীন কাজের সুযোগ পাবে। যোগ্যতা এইচএসসি বা স্নাতক পড়ুয়া। রোজার ১০ দিন আগ পর্যন্ত সিভি দেওয়া যাবে যেকোনো আউটলেটে। নতুনরা দৈনিক ৩৫০ টাকা এবং অভিজ্ঞদের বেতন ঠিক করা হবে আলোচনার মাধ্যমে।

 

মেনজ ওয়ার্ল্ড

৩০ দিন, ৪৫ দিন ও স্থায়ী—এ তিনটি প্যাকেজে ২৬টি শাখার জন্য ৮০-১০০ জন সেলস এক্সিকিউটিভ নেবে মেনজ ওয়ার্ল্ড। মেনজ ওয়ার্ল্ডের ম্যানেজার আরিফুর রহমান জানান, এইচএসসি পাস বা স্নাতক পড়ুয়া এবং একই কাজে অভিজ্ঞদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। যেকোনো শাখায় সিভি জমা দেওয়া যাবে। নতুনরা এক মাসে কমপক্ষে ১০ হাজার এবং অভিজ্ঞরা ২০-২৫ হাজার টাকা বেতন পাবে।

 

লোটো বাংলাদেশ

ঈদ টেমপোরারি স্টাফ (ঈদটিএস) পদে ২০০ কর্মী নেবে  লোটো বাংলাদেশ। এইচএসসি পাশ হলেই সিভি দেওয়া যাবে প্রতিষ্ঠানটির ৭৭টি শোরুমের যেকোনো একটিতে। স্নাতক পডুয়াদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। সিভি জমা দেওয়া যাবে রমজান মাসের ১৫ দিন আগ পর্যন্ত। একমাস ও ১৫ দিনের জন্য এসব কর্মী নিয়োগ দেওয়া হবে। এক মাসের জন্য বেতন দেওয়া হবে আট হাজার টাকা এবং ১৫ দিনের জন্য চার হাজার টাকা।

 

টেক্সমার্ট

১২টি আউটলেটের জন্য ৪০ থেকে ৫০ জন সেলস অ্যাসোসিয়েট নেবে টেক্সমার্ট। এইচএসসি পাস বা পরীক্ষার্থী এমন যে কেউ সিভি জমা দিতে পারবে যেকোনো আউটলেটে। সিভি জমা দেওয়া যাবে ২০ এপ্রিল পর্যন্ত। মার্কেটিং অ্যান্ড অপারেশন্স ম্যানেজার সুমন ডীপ জানান,

এক মাসে কমপক্ষে ১০ হাজার টাকা রোজগার করা যাবে।

 

জেনে রাখুন

 

দর্জিবাড়ীর মহাব্যবস্থাপক শাহজাহান সিরাজ সুমন জানান, ঈদ ও রমজান সামনে রেখে আছে খণ্ডকালীন চাকরির সুযোগ। বিশেষ করে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের পোশাক বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানগুলোতে সুযোগটা বেশি। আগ্রহীদের ব্র্যান্ডশপগুলোতে সরাসরি যোগাযোগ করতে হবে। পরিচিত কেউ কর্মরত থাকলে তার মাধ্যমেও মিলতে পারে কাজের সুযোগ। রমজান মাসে অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকে। এ সময়টাকে বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজপড়ুয়া ছাত্রছাত্রীরা কাজে লাগাতে পারেন। পড়াশোনার পাশাপাশি এতে আয়ের সুযোগ আছে। এ ছাড়া এতে অভিজ্ঞতা হয়, যা চাকরির ক্ষেত্রে কাজে দেবে।

মোবাইল নম্বরসহ প্রয়োজনীয় তথ্য থাকতে হবে সিভিতে। কাজের অভিজ্ঞতা থাকলে সিভিতে উল্লেখ করতে হবে। দুই কপি রঙিন ছবি এবং শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ চেয়ে থাকে অনেক প্রতিষ্ঠান। সে ক্ষেত্রে তাদের চাহিদামতো প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সরবরাহ করতে হবে। সিভি যাচাই-বাছাই করে মোবাইলে জানিয়ে দেওয়া হয় কোথায় এবং কখন সাক্ষাৎকার দিতে হবে। কোনো তথ্যের জন্য যোগাযোগ করতে পারেন আউটলেট বা শোরুমগুলোতে। একজন কর্মীকে সাধারণত সকাল ১০টা থেকে রাত পর্যন্ত একটানা কাজ করতে হয়। তাই প্রায় প্রতিটি প্রতিষ্ঠান কর্মীদের অন্যান্য সুবিধাও দিয়ে থাকে। যেমন ইফতারি, নাইট অ্যালাউন্স, বাড়তি ঘণ্টার জন্য বিশেষ ভাতা, ট্রান্সপোর্ট সুবিধা। কোনো কর্মী ভালো পারফরম্যান্স দেখাতে পারলে স্থায়ীও করে থাকে অনেক প্রতিষ্ঠান।



মন্তব্য