kalerkantho

দেশ পরিচিতি

ওমান

৬ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



ওমান

আরব উপদ্বীপের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় দেশ ওমান। পারস্য উপসাগরের মুখে অবস্থিত দেশটি ভূ-রাজনৈতিক ও কৌশলগত দিক থেকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

স্থলভাগে উত্তর-পশ্চিমে সংযুক্ত আরব আমিরাত, সৌদি আরব, পশ্চিম ও দক্ষিণ-পশ্চিমে ইয়েমেন। ইরান ও পাকিস্তানের সঙ্গে সমুদ্রসীমা রয়েছে দেশটির।

সপ্তদশ শতাব্দীতে ওমান শক্তিশালী সাম্রাজ্য ছিল। পর্তুগাল ও ব্রিটেনের সঙ্গে টেক্কা দিয়ে চলত তারা। উনবিংশ শতাব্দীতে তাদের প্রভাব পাকিস্তান ও ইরান পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ে। বিংশ শতাব্দীতে এসে এই প্রভাব কমতে শুরু করে। সালতানাতের ওপর ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের ছায়া দেখা দেয়।

ঐতিহাসিকভাবেই মাসকাট পারস্য উপসাগরীয় অঞ্চলের অন্যতম প্রধান বাণিজ্য বন্দর। দেশটির রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম এবং রাজতন্ত্র প্রচলিত সেখানে।

১৯৭০ সাল থেকে সুলতান কাবুস বিন সৈয়দ দেশটি শাসন করছেন। মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে দীর্ঘ সময় ধরে তিনি ক্ষমতায় আছেন।

ওমান তেলসম্পদে সমৃদ্ধ। এ ক্ষেত্রে তাদের অবস্থান বিশ্বে ২৫তম। অর্থনীতির একটি বড় অংশ আসে পর্যটন থেকে। এ ছাড়া দেশটি মাছ, খেজুর ও কিছু কৃষি পণ্যও রপ্তানি করে। যদিও তাদের প্রতিবেশী দেশগুলো এখনো প্রধানত তেলের ওপর নির্ভর করে চলে। বিশ্ব শান্তি সূচকে ওমানের অবস্থান ৭৪তম।

এক নজরে

পুরো নাম : সালতানাত ওমান।

রাজধানী ও সর্ববৃহত্ শহর : মাসকাট।

দাপ্তরিক ভাষা : আরবি।

ধর্ম : ইসলাম।

সরকারপদ্ধতি : ইউনিটারি পার্লামেন্টারি অ্যাবসেলিউট মনার্কি।

সুলতান : কাবুস বিন সৈয়দ।

আইনসভা : পার্লামেন্ট।

উচ্চকক্ষ : কাউন্সিল অব স্টেট (মজলিশ আল-দাওলা), নিম্নকক্ষ : কনসালটেটিভ অ্যাসেমব্লি (মজলিশ আল শুরা)।

আয়তন : তিন লাখ ৯ হাজার ৫০০ বর্গকিমি।

জনসংখ্যা : ৪৪ লাখ ২৪ হাজার ৭৬২।

ঘনত্ব : প্রতি বর্গ কিলোমিটারে ১৫ জন।

জিডিপি : মোট-১৮৯.৫৮২ বিলিয়ন ডলার।

মাথাপিছু : ৪৬ হাজার ৪৭৫ ডলার।

মুদ্র : রিয়াল।

জাতিসংঘে যোগদান : ৭ অক্টোবর ১৯৭১।


মন্তব্য