kalerkantho


মুখর সব ক্লাব

৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



এ বিশ্ববিদ্যালয়ে লেখাপড়ার পাশাপাশি বিতর্ক, সংস্কৃতিচর্চা, খেলাধুলা, আর্ত মানবতার সেবা ইত্যাদির মাধ্যমে ছাত্র-ছাত্রীদের সুস্থ জীবন যাপনের জন্য অনেক ক্লাব আছে। সেগুলোর মধ্যে আছে—‘আশা ইউনিভার্সিটি বিজনেস ক্লাব’, ‘আশা ইউনিভার্সিটি ক্যারিয়ার অ্যান্ড ল্যাংগুয়েজ ক্লাব’, ‘আশা ইউনিভার্সিটি ইংলিশ ক্লাব’, ‘আশা ইউনিভার্সিটি ফটোগ্রাফি অ্যান্ড মুভি ক্লাব’, ‘আশা ইউনিভার্সিটি সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার ক্লাব’, ‘আশা ইউনিভার্সিটি সেন্ট্রাল গেমস অ্যান্ড স্পোর্টস ক্লাব’, ‘আশা ইউনিভার্সিটি কালচারাল ক্লাব’,‘আশা ইউনিভার্সিটি ল ক্লাব’, ‘আশা ইউনিভার্সিটি মুটিং ক্লাব’, ‘আশা ইউনিভার্সিটি সোশিওলজি ক্লাব’ ও ‘আশা ইউনিভার্সিটি ফার্মা ক্লাব’। সব ক্লাবই কম-বেশি পুরনো। এগুলোর মাধ্যমে ছাত্র-ছাত্রীরা যেমন নিজেদের নানাভাবে দক্ষ করে তোলে, তেমনি নানা সামাজিক কাজও করে। ইংলিশ ক্লাবের সভাপতি তানভিয়া কাইয়ূম বলেন, ‘আমাদের ক্লাব থেকে ইংরেজি বিভাগের ছাত্র-ছাত্রীরা ‘সিম্ফোনি’ নামের ম্যাগাজিন প্রকাশ করে। বিশ্ববিদ্যালয়ে নবীন ছাত্র-ছাত্রীদের ইংরেজি দক্ষতা বাড়াতে এই ক্লাব কর্মশালা ছাড়াও বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র ও ব্রিটিশ কাউন্সিলের সঙ্গে যৌথভাবে বই পড়ার প্রতিযোগিতা করে।’ ফার্মা ক্লাবের সেক্রেটারি এ কে এম কবির নেওয়াজ চৌধুরী বলেন, ‘নানা আয়োজনের পাশাপাশি গত বছর আমরা বন্যার্তদের পাশে দাঁড়াতে বিভাগের গবেষণাগারে ছাত্র-ছাত্রীরা শিক্ষকদের সহায়তায় পাঁচ হাজার প্যাকেট খাবার স্যালাইন তৈরি করে বন্যাদুর্গত এলাকাগুলোতে বিতরণ করেছি।’ ক্যারিয়ার অ্যান্ড ল্যাংগুয়েজ ক্লাবের সভাপতি আবদুল ওয়াদুদ বলেন, ‘আমাদের ক্লাব দক্ষতা ও নেতৃত্ব উন্নয়ন কর্মশালা করে। আমরাও অন্যদের মতো নানা বিপদে দুর্গতদের পাশে দাঁড়াই। ২০০৯ সালে ঘূর্ণিঝড় আইলার সময় খুলনার রয়্যাল হোটেল ও এসিআই লিমিটেডের সহযোগিতায় ঘূর্ণিঝড়ে সব হারানো মানুষের পাশে খাবার, পানি, ওষুধ ও বস্ত্র বিতরণ করেছি।’ ল’ ক্লাবের সভাপতি ওমর ফারুক জানালেন, স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক লিমিটেডের সহযোগিতায় তাঁরা বিশ্ববিদ্যালয়ের অডিটরিয়ামে এইচআইভি ভাইরাস বিষয়ে ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান করেছেন। বাংলাদেশ থ্যালাসেমিয়া সমিতি হাসপাতালের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে শিক্ষার্থীদের মধ্যে স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচিও পালন করেছেন। এই ক্লাবগুলোর সব কয়টিরই শুরুর গল্প আছে। যেমন—অ্যাপ্লাইড সোশিওলজি বিভাগের প্রধান ড. আহসান হাবীবের উদ্যাগে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে ‘সোশিওলজি ক্লাব’। এটির সাধারণ সম্পাদক সাব্বির। তিনি বলেন, ‘ক্লাবের হয়ে আমরা সমাজবিজ্ঞানের সেমিনার আয়োজন করি। পাশাপাশি মাদকবিরোধী সেমিনার, বিষয়ভিত্তিক বিতর্ক প্রতিযোগিতা করি। সদস্য ও আগ্রহী খেলোয়াড়দের নিয়ে আন্তবিশ্ববিদ্যালয় দাবা, লুডু, ক্যারামসহ আন্তব্যাচ ফুটবল প্রতিযোগিতাও করেছি।’ তিনি আরো জানালেন, ক্লাবের মাধ্যমে তাঁরা কুইজ প্রতিযোগিতাও করেন। ২০০৯ সালে আশা ইউনিভার্সিটি সেন্ট্রাল ডিবেটিং ক্লাব প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। শুরুর তিন বছরের মাথায় তাঁরা সপ্তাহজুড়ে আন্তবিশ্ববিদ্যালয় বিতর্ক প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছেন। তাঁরা নিয়মিত বিতর্কের কর্মশালা করেন, দিবসভিত্তিক বিতর্কানুষ্ঠানও করেন। ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডাইনা আনসারীর নেতৃত্বে তাঁদের একটি প্রতিনিধিদল ২০১০ সালে সাভারে ‘ফিফথ সাউথ এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ইয়ং ফেস্টিভ্যাল’ এ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধিত্ব করেছে। ২০১২ সালে তারা ক্যাম্পাসে সাংস্কৃতিক সপ্তাহের আয়োজন করেছিল। সেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্য ক্লাবগুলো তো বটেই, নাচ, গান, অভিনয়, আবৃত্তি ইত্যাদিতে বিভিন্ন বিভাগে শিক্ষার্থীরাও অংশ নিয়েছে। ২০১৪ সালে ক্লাবের সদস্যদের একটি দল ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় আয়োজিত ‘প্রথম আন্তবিশ্ববিদ্যালয় লোকসংগীত প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে দ্বিতীয় হয়েছে। বাইরের নানা প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার পাশাপাশি বিভিন্ন দিবসেও এই ক্লাব ক্যাম্পাসে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। গেমস অ্যান্ড স্পোর্টস ক্লাব নিয়মিতভাবে নানা উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ে ফুটবল, ক্রিকেট, দাবাসহ নানা খেলাধুলার আয়োজন করে। ফটোগ্রাফিক অ্যান্ড মুভি ক্লাব বছরজুড়ে আলোকচিত্র প্রদর্শনী, সদস্যদের নিয়ে ছবি তোলার কার্যক্রম—ফটোওয়ার্ক ছাড়াও আন্তবিশ্ববিদ্যালয় স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। সেই প্রতিযোগিতায় ক্লাব সদস্যরা ছাড়াও আগ্রহী ছাত্র-শিক্ষকরা তাঁদের তৈরি ছবি জমা দেন। সেগুলো বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্য শিক্ষার্থীরা দল বেঁধে দেখতে আসে। ক্যারিয়ার অ্যান্ড ল্যাংগুয়েজ ক্লাব সদস্য ও শিক্ষার্থীদের ভাষা দক্ষতা বাড়ানো এবং তাদের মধ্যে নেতৃত্বের বিকাশের জন্য কর্মশালা করে। বিজনেস ক্লাবের জন্ম বিশ্ববিদ্যালয়ের শুরুতে। ক্লাবটি ব্যবসায়িক পরিকল্পনা প্রতিযোগিতা, বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে তরুণ উদ্যোক্তা মেলা, ক্যারিয়ার কর্মশালা, উদোক্তাদের জীবনের গল্প জানা ইত্যাদি কার্যক্রম করে। আশা ইউনিভার্সিটি ডান্স ক্লাব, আশা ইউনিভার্সিটি ফিন্যান্স ক্লাব, আশা ইউনিভার্সিটি মুটিং ক্লাব ও আশা ইউনিভার্সিটি ড্রামা ক্লাবও অন্য ক্লাবগুলোর মতো বছরজুড়ে নানা আয়োজনে ব্যস্ত থাকে।

 

 


মন্তব্য