kalerkantho


প্যান্টের প্যাটার্ন

ঋতু বদলের সঙ্গে বদলায় ফ্যাশন। ছেলেদের প্যান্টের প্যাটার্নেও দেখা যাচ্ছে নানা বৈচিত্র্য। প্যান্টের প্যাটার্ন, রং প্রভৃতি বিষয়ে সংশ্লিষ্ট ডিজাইনারদের সঙ্গে কথা বলে বিস্তারিত জানিয়েছেন নাঈম সিনহা

৫ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



প্যান্টের প্যাটার্ন

মডেল : সাদ ও আসিফ, পোশাক : জেন্টল পার্ক ও ইজি, স্টাইল : এভারগ্রিন অ্যাডামস অ্যান্ড ইভ, ছবি : কাকলী প্রধান

না গরম, না ঠাণ্ডা—এমন আবহাওয়ায় ছেলেদের পোশাক পছন্দ করতে হবে একটু ভেবে। গরম ও সারা দিনের ধকলের কথা মাথায় রেখে ফ্যাশন বুঝে বাছাই করতে হবে প্যান্ট।

ডিজাইনারদের মতে, ২০১৮ সালে ঘুরেফিরে গত বছরগুলোর ফ্যাশন ট্রেন্ডই দেখা যাবে। প্যান্ট বা ট্রাউজার যা-ই হোক, সব ফ্যাশনেই আছে তারুণ্যনির্ভরতা।

যদি পরতে চান ক্যাজুয়াল প্যান্ট, তবে তো কথাই নেই। গরমকালে ক্যাজুয়ালেরই রাজত্ব। গরমে ক্যাজুয়াল প্যান্ট বলতে গ্যাবার্ডিন বা টুইল নামের সুতি পাতলা কাপড়ের প্যান্টকেই বোঝানো হয়।

তবে এ সময় প্যান্টের মধ্যে বেছে নিতে পারেন কিছুটা চাপা শেপের স্লিম ফিট। ট্রাউজার থাকতে পারে পছন্দের চেকলিস্টে। ট্রাউজার বলতে স্পোর্টস ট্রাউজার ভাবলে ভুল হবে। জগার বা কার্গো প্যান্টও ট্রাউজারের মধ্যেই পড়ে। জগার প্যান্ট অনেকটাই ট্রাউজারের মতো। এই প্যান্টের সামনে-পেছনে থাকে পকেট। আর বেল্ট বাঁধার জায়গায় থাকে ফিতা। কিছুটা স্লিম হয়। প্যান্টের নিচের অংশে থাকে কাফ বা ইলাস্টিক। তাই প্যান্টের নিচের অংশ চাপা হয়। দেখতে প্রায় একই রকম সয়েট প্যান্টও।

স্লিম ফিট প্যান্ট এখন বেশ জনপ্রিয়

সময় এখন স্লিম ফিট টুইল বা চিনোর। চিনো বলতে গ্যাবার্ডিনের চাপা শেপের রঙিন প্যান্টকেই বোঝানো হয়। ভিন্ন প্যাটার্নের মধ্যে চিনোর মিল রয়েছে জগার এবং সয়েট প্যান্টের সঙ্গে। এ ছাড়া অনেকে পরছেন কার্গো প্যান্ট। কার্গো প্যান্ট হচ্ছে কিছুটা ঢোলা। প্যান্টে থাকে মোবাইল পকেট। এসব প্যান্টের ডিজাইন ও কাপড়ে নতুনত্ব দেখা যাচ্ছে।

রোল করে অনেকে পরছেন প্যান্ট। নিচের দিকে পিনরোল করে গুটিয়ে প্যান্ট পরার ফ্যাশন জনপ্রিয় হয় সত্তর-আশির দশকে, হলিউডের নায়ক টম ক্রুজকে দেখেই

জেন্টল পার্কের চিফ ডিজাইনার শাহাদৎ চৌধুরী বাবু জানান, ফ্যাব্রিক-বৈচিত্র্য থেকে প্যাটার্ন বা ডিজাইন এখন সব কিছুতে কনটেম্পরারি টুইস্ট দিতেই উৎসাহী ফ্যাশন ট্রেন্ডের প্রতিনিধিরা। ছেলেদের ফ্যাশনে ব্যক্তিত্ব প্রকাশ পায় পোশাকে। তাই নিরীক্ষা এখন প্যাটার্ন, প্রিন্ট, ম্যাটেরিয়াল আর অ্যামবেলিশমেন্ট নিয়েও। জুতা পরে মোজা ছাড়াই প্যান্ট ব্যবহারের ফ্যাশনই মূলত ক্রপ ট্রাউজারের প্যাটার্ন থেকে এসেছে। গোড়ালি থেকে খানিকটা উঁচুতে ন্যারো শেপ এ ধরনের প্যান্টে বেশি জনপ্রিয়। রোল করেও কেউ কেউ এই ফ্যাশন অনুসরণ করে থাকে। তবে নিচের দিকে পিনরোল করে গুটিয়ে প্যান্ট পরার ফ্যাশন জনপ্রিয় হয় সত্তর-আশির দশকে হলিউডের সিনেমার নায়ক টম ক্রুজকে দেখেই। সেটা আবারও ফিরে এসেছে। টুইলের ক্ষেত্রে রঙিন রংগুলো টিনএজদের বেশি ব্যবহার করতে দেখা যায়। এ ক্ষেত্রে অ্যাশ, গ্রে, মেরুন, খাকি বা বিস্কুট রংগুলোই বেশি পছন্দ।

জুতা পরে মোজা ছাড়াই প্যান্ট ব্যবহারের ফ্যাশন এসেছে ক্রপ ট্রাউজারের প্যাটার্ন থেকে। গোড়ালি থেকে খানিকটা উঁচুতে ন্যারো শেপ—এ ধরনের প্যান্ট বেশ জনপ্রিয়। যার ধরনে মিল আছে চিনোর সঙ্গে

ক্যাটস আইয়ের পরিচালক ও ডিজাইনার সাদিক কুদ্দুস জানান, ‘চাপা শেপের রঙিন গ্যাবার্ডিন প্যান্টের নতুন নামই চিনো। পাশ্চাত্যের অনুকরণে গত কয়েক বছরে ফ্যাশন ট্রেন্ডে চিনো নামটি ভালোভাবে জায়গা করে নিয়েছে। চিনো মূলত আমেরিকান সামরিক সৈন্যদের জন্য ব্যবহৃত ফ্যাশন হলেও ট্রেন্ড হিসেবে নব্বইয়ের দশকে জনপ্রিয়তা পায়। তবে আমাদের দেশে ফ্যাশন ব্র্যান্ডগুলো চিনো নিয়ে নিরীক্ষাধর্মী কাজ করছে, যা মূলত প্যাটার্ননির্ভর। লিনেন বা কটন একরঙা অথবা প্রিন্টের শার্ট বা পলোতে চিনো বেশ মানানসই। খাকি, গ্রে ও গাঢ় খয়েরি চিনোতে যেকোনো টি-শার্ট বা শার্ট মানানসই। মূলত চিনো ফিটিংসের জন্যই জনপ্রিয়তা পেয়েছে। চিনোতে সামনের দিকে বাড়তি ডার্ট থাকে না। একসময়ের স্ট্রেইট কাট বা বেগি গ্যাবার্ডিন প্যান্টই এখন চিনো আকৃতির শেপে জনপ্রিয়তা পেয়েছে। বটম পরার ক্ষেত্রে লম্বা বা বেঁটে—সেটি নজরে আনা উচিত। ক্রপ বটম হাঁটুর ওপরে বেশি লম্বাদের জন্য মানানসই। তবে স্লিম ফিট একটু স্বাস্থ্য ভালো বা মোটাদের এড়িয়ে চলাই ভালো। তবে কেমন হবে বটমের দৈর্ঘ্য ও নিচের দিকের ন্যারো শেপ, তা পুরোটাই আপনার ওপর নির্ভর করবে।

ইজি ফ্যাশনের পরিচালক ও ডিজাইনার তৌহিদ চৌধুরী জানালেন, বরাবরের মতো তরুণদের জিন্স প্যান্টই বেশি পছন্দ। জিন্সের মধ্যে আগে তরুণরা ছেঁড়া বা ফেইড পছন্দ করত, তবে এখন তা কমেছে। একরঙা নেভি ব্লু-কালো ধরনের জিন্সের রংটাই বেশি পছন্দ করছে তারা।

জিন্সের পাশাপাশি গ্যাবার্ডিনের চাহিদাও বেশ বেড়েছে। গ্যাবার্ডিনে সাধারণত গাঢ় রং পছন্দ সবার। বাংলাদেশের আবহাওয়া ও ধুলাবালির কারণেই এমন পছন্দ। তবে হালকা রঙের চাহিদা যে খুব কম, তা নয়।

রঙিন বা কালার ব্লাস্টের চাহিদা এখন আর তেমন নেই। এখন গ্যাবার্ডিনে লাল-হলুদ—এসব রঙের চাহিদা কমেছে। বছর দুই আগেও এর বেশ চাহিদা ছিল।

গ্যাবার্ডিনে বিশেষ কোনো ডিজাইন সাধারণত হয় না। পকেটে হালকা কাজ থাকলে ক্রেতারা বেশি পছন্দ করেন। প্যান্টের কাপড়ের ক্ষেত্রে ডেনিমের মতো পাতলা কাপড়ের গ্যাবার্ডিন প্যান্ট বেশ ভালো চলে। এখন স্লাভ নামে আরেকটি নতুন কাপড় বাজারে এসেছে। এ ধরনের কাপড়ের সুতায় হালকা কাজ থাকে। এ কারণেই এর বেশি চাহিদা।

গোড়ালির ওপর ভাঁজ করে যাঁরা প্যান্ট পরতে চান, তাঁরা প্যান্টের ওপরে ও ভেতরে দুই রঙের—এমন প্যান্ট বেছে নিন। যাতে গোড়ালির ওপর ভাঁজ করলে প্যান্টের নিচের দিকে আলাদা একটা রং বের হয়। বছরখানেক হলো এই ফ্যাশন বেশ জনপ্রিয় হয়েছে।

আসছে গ্রীষ্ম। ডিজাইনাররা গরম নিয়েও ভাবছেন এখন। গরমের কথা চিন্তা করে সুতি কাপড় ব্যবহার করছেন তাঁরা। প্যান্টের জন্য যেসব কাপড় বেশি আরামদায়ক, ফ্যাশনে প্রাধান্য পাচ্ছে তা-ই।



মন্তব্য