kalerkantho


ডায়েট

মহিলাদের রোগে অশোকের দাওয়াই

প্রাচীন চিকিত্সাবিজ্ঞানে মহিলাদের রূপ-লাবণ্য চর্চা এবং শারীরিক ও মানসিক রোগ-ব্যাধি নিরাময়ে অশোকে রয়েছে চমত্কার ভেষজ গুণ। রোগ-ব্যাধি নিরাময়ে অশোকের ভেষজ দাওয়াই দিলেন তিব্বিয়া হাবিবিয়া কলেজের অধ্যক্ষ হাকীম ফেরদৌস ওয়াহিদ

১ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০




মহিলাদের রোগে অশোকের দাওয়াই

*          অনিয়মিত ঋতুস্রাবে ২০ গ্রাম পরিমাণ কাঁচা অশোক ছাল ৩ কাপ পানিতে ভিজিয়ে ১২ ঘণ্টা  পর  জ্বাল  দিয়ে ২ কাপ হলে ছেঁকে খালি পেটে সকালে ও সন্ধ্যায় ১ কাপ করে ৩ মাস সেবনে ঋতুস্রাব স্বাভাবিক হয়।

*          মহিলাদের জরায়ুর দুর্বলতায়, অর্থাত্ সন্তানধারণ ক্ষমতা দুর্বল হলে ৫ গ্রাম অশোক ছাল চূর্ণ ও গোলমরিচ ৫টি একত্রে ৩ কাপ গরম পানিতে সকালে ও সন্ধ্যায় ভিজিয়ে ১২ ঘণ্টা পর জ্বাল দিয়ে অর্ধেক হলে ছেঁকে ২ বার নিয়মিত ৬ মাস সেবনে জরায়ুর শক্তি বৃদ্ধি পায়।

*          লিউকোরিয়া বা শ্বেদপ্রদর রোগে উপরোক্ত নিয়মে ৩ মাস সেবনে উপকার পাওয়া যায়।

*          ঋতুকালীন তলপেটের ব্যথায় ২০ গ্রাম পরিমাণকাঁচা ছাল পাটায় বেটে তল পেটে পেস্ট করে লাগালে ব্যথা নিরাময় হয়।

*          প্রসব অথবা অসাবধানতাবশত জরায়ু ঝুলে পড়লে ২০ গ্রাম পরিমাণ অশোক ছাল চূর্ণ ৪ কাপ গরম পানিতে ১২ ঘণ্টা ভিজিয়ে জ্বাল দিয়ে অর্ধেক হলে ১ কাপ সকালে ও ১ কাপ সন্ধ্যায় ২ চা চামচ মধুসহ ৩ মাস সেবন করলে জরায়ু সংকুচিত হয়।

*          অনেকের মাঝেমধ্যে মাসিক ছাড়াই অল্প অল্প রক্তের চাকা বের হয়। এ ক্ষেত্রে ৫ গ্রাম অশোক চূর্ণ ২ চা চামচ মিছরি গুঁড়ো একত্রে মিশিয়ে সকালে ও সন্ধ্যায় নিয়মিত ৩ মাস সেবনে উপকার পাওয়া যায়।

*          ডিম্বনালির প্রতিবন্ধকতায় অথবা ডিম্বনালিতে সিস্ট হলে কাঁচা অশোক ছাল ১০ গ্রাম, গোলমরিচ ৫টি একত্রে পাটায় বেটে সকালে ও সন্ধ্যায় ৩ মাস সেবনে উপকার পাবেন।

*          বগলের দুর্গন্ধ দূর করতে অশোক ছালের রস ৪ চা চামচ সকাল-সন্ধ্যায় খালি পেটে সেবনের পাশাপাশি অশোক পাতা পানিতে সিদ্ধ করে ওই পানি দিয়ে ১ মাস গোসল করলে এ সমস্যা থাকে না।

*          ঠাণ্ডার কারণে কণ্ঠনালি ও স্নায়ুমণ্ডলের প্রতিবন্ধকতায় ৫ গ্রাম অশোক চূর্ণ ৪ কাপ পানিতে ১২ ঘণ্টা ভিজিয়ে অর্ধেক হলে ছেঁকে ওই ক্বাথ দিনে ৩ বার কুসুম গরম করে পান করলে ৫-৭ দিনেই উপকার হয়।

*          পুরনো সর্দি অথবা বুকে কফ জমে থাকলে অশোক ছাল বেটে গরম করে পেস্টের মতো গলা ও বুকে প্রলেপ দিলে আরাম পাওয়া যায়।

*          শীতকালে খসখসে ত্বকের লাবণ্য ফিরিয়ে আনতে অশোক ছাল চূর্ণ ১ চা চামচ, মধু ২ চা চামচ, ১ কাপ গরুর গরম দুধে মিশিয়ে সকালে ও সন্ধ্যায় ১০-১৫ দিন সেবন করলে ত্বকের লাবণ্যতা ফিরে আসে।

*          রূপচর্চায় অশোক ফুল বেটে প্রতিদিন সকালে মুখে পেস্ট করে ১ ঘণ্টা পর কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এভাবে ১০-১৫ দিন ব্যবহারে মুখের দাগ দূর হয়।

*          কোনো কিছুতেই রক্তস্রাব বন্ধ না হলে অশোকের শিকড় ছেঁচে রস করে ৪ চা চামচ ও কাঁচা দুর্বা ঘাসের রস ৪ চা চামচ একত্রে ৪ ঘণ্টা পর পর ২ দিন ব্যবহারে রক্ত বন্ধ হয়ে যায়।
 



মন্তব্য