English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

ঠিক সময়েই থামার তৃপ্তি কুকের

  • ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০

সিরিজের প্রথম চার টেস্টে ১০৯ রান। গড় ১৫.৫৮। ভারতের বিপক্ষে এমন পারফরম্যান্সেই শেষের ডাকটা প্রবলভাবে শুনতে পান অ্যালিস্টার কুক। অবসরের ঘোষণা দিয়ে দেন তাই। সে অবসরটা ওভালে শেষ টেস্ট থেকে বাদ পড়েও তো হতে পারত! হাফসেঞ্চুরি, সেঞ্চুরিতে এমন রাজসিক বিদায় তাই হতো না তাঁর!

অবসরের ঘোষণা দেওয়ার পর নির্বাচক এড স্মিথের সঙ্গে কথা বলেন কুক। বাজে ফর্মের কারণে ওভাল টেস্টের একাদশ থেকে বাদ দেওয়া হলে নির্বাচকদের অবস্থান বুঝতে পারবেন বলে জানান তিনি। একই সঙ্গে জানিয়ে দেন, একাদশে রাখলে খেলার জন্য প্রস্তুতির কথাও। স্মিথের জিজ্ঞাসা ছিল, আরেকটি ম্যাচ খেলার মতো লড়াকু মনোভাব তাঁর ভেতর রয়েছে কি না। কুক হ্যাঁ-সূচক উত্তর দিলে স্মিথ জানিয়ে দেন, ওভাল টেস্ট খেলছেন তিনি।

সেখানেই ৭১ ও ১৪৭ রানের দারুণ দুটো ইনিংসে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে কুকের স্মরণীয় বিদায়।

শেষ ইনিংসে সেঞ্চুরি করেন তিনি। সেটিও কী নাটকীয়ভাবে, ওভার থ্রো থেকে পাওয়া বাড়তি চার রানে। এটি যে ভীষণ স্বস্তির ছিল, তা বলেছেন কুক, বলটিকে কাট করে ভাবলাম, ৯৭ রান হয়েছে, আরো তিন রান করতে হবে। এরপর বুমরাহ যখন থ্রো করল, মনে হলো, দেখা যাক কী হয়! ওই থ্রোয়ে জাদেজা ধারেকাছেও ছিল না। তখন আবার মনে হলো, দেখা যাক কী হয়! ওই ওভার থ্রো আমাকে অনেক মানসিক যন্ত্রণা থেকে বাঁচিয়েছে। সিরিজজুড়ে বুমরা এমনিতেই আমাকে অনেক যন্ত্রণা দিয়েছে। সেখানে এভাবে একটু সাহায্য করায় ওকে ধন্যবাদ দিতেই হয়। ওভাল টেস্টের সময়টাকে ঠিক বাস্তব বলেও মনে হচ্ছে না তাঁর, কী অনুভূতির ভেতর দিয়ে যে যাচ্ছি, তা ঠিক বলতে পারব না। আমার জীবনের সবচেয়ে পরাবাস্তব চারটি দিন কাটালাম। এখন আজ রাতে যদি আমার স্ত্রী অ্যালিসের প্রসববেদনা ওঠে, তাহলে তো সোনায় সোহাগা। তবে এমনভাবে পারফরম করা, এমন এক সেঞ্চুরি১৬০ ম্যাচ পর এভাবে বিদায় বলাটা অবশ্যই বিশেষ কিছু।

সমর্থকদের ভালোবাসাতেও আপ্লুত কুক, আমার স্ত্রী-সন্তানরা আছে গ্যালারিতে। কিছু বন্ধুও এসেছে খেলা দেখতে। এই সেঞ্চুরিটি তাই খুব স্পেশাল। শুধু তা-ই নয়, চার দিন ধরে সবার যে ভালোবাসা পাচ্ছি, তা-ও অবিশ্বাস্য। শেষ কিছু ওভারে বার্মি আর্মিরা যখন আমার নামে গান গাইছিল, তা ভীষণই স্পেশাল। এটি ক্রিকেটে সেরা দিন কি না এমন প্রশ্নে কিছুটা দ্বিধান্বিত তিনি, একেবারে স্বার্থপরের মতো যদি দেখি, তাহলে এর চেয়ে ভালো সপ্তাহ চাইতে পারতাম না।

অবসরের ভাবনা তাঁর মাথায় ঘুরপাক খাচ্ছে এক-দেড় বছর ধরেই। অবশেষে এটিকে ঠিক সময় মনে হয়েছে বলে কুকের এমন সিদ্ধান্ত, গত ১২ মাস, ১৮ মাস ধরেই অবসরের চিন্তা মাথায় ঘুরপাক খাচ্ছিল। অনুশীলনে ও ম্যাচে মনে হচ্ছিল, সেই ক্ষুধা যেন কিছুটা হারিয়ে ফেলেছি। সে কারণেই বিদায়ের সিদ্ধান্ত। অবশ্যই এটি অনেক বড় সিদ্ধান্ত। তবে আপনি যখন জানবেন থেমে যাওয়ার এটিই সময়, তাহলে তা-ই হোক। এ কারণেই আমি চলে যাচ্ছি অবসরে। নিজ ইচ্ছায় অবসরে যাওয়ার তৃপ্তিও তাঁর, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আমার সময় ফুরিয়ে গেছে। এখন সময় পরিবারকে দেওয়ার। আর লোকে যখন বলাবলি করে আমার খেলা চালিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা নিয়ে, তা শুনতে ভালোই লাগে। লাথি মেরে বের করে দেওয়ার আগে নিজের ইচ্ছামতো বিদায় বলাটা আসলেই স্পেশাল। এএফপি, মেইল

খেলা- এর আরো খবর