English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

সাম্প্রাসকে ছোঁয়ার হাতছানি জোকোভিচের

  • ৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০

ইউএস ওপেন ট্র্যাজেডি হয়েই রইল রাফায়েল নাদালের। ১৮তম গ্র্যান্ড স্লামের কাছে গিয়েও ফিরতে হলো একরাশ হতাশা নিয়ে। গত পরশু সেমিফাইনালে দ্বিতীয় সেটের পর সরে দাঁড়ান পুরনো চোটের কারণে। ২০০৯ সালের পর তাই দ্বিতীয়বার ইউএস ওপেনের ফাইনালে হুয়ান মার্তিন দেল পোত্রো। আজকের ফাইনালে এই আর্জেন্টাইনের প্রতিপক্ষ নোভাক জোকোভিচ। অপর সেমিফাইনালে কেই নিশিকোরিকে ৬-৩, ৬-৪, ৬-২ গেমে বিধ্বস্ত করেছেন ১৩ গ্র্যান্ড স্লামজয়ী এই সার্বিয়ান। আজ জিতলে পাশে বসবেন ১৪ গ্র্যান্ড স্লাম জেতা পিট সাম্প্রাসের। এ জন্য রোমাঞ্চিত তিনি, ইনজুরির জন্য গতবার খেলতে পারিনি। এ বছর ফিরে ফাইনাল খেলতে পারাটা অসাধারণ। ১৪তম গ্র্যান্ড স্লাম, শুনতেই রোমাঞ্চ লাগে!

ইউএস ওপেনের তৃতীয় রাউন্ডে ব্যথা পেয়েছিলেন নাদাল। এর পরও দুর্দান্ত দাপটে পৌঁছান সেমিফাইনালে। ডমিনিকি থিয়েমের বিপক্ষে কোয়ার্টার ফাইনাল জিতেছিলেন পাঁচ ঘণ্টার মহাকাব্যিক লড়াইয়ে। ডান পায়ের ব্যথাটা তখন মাথাচাড়া না দিলেও গত পরশু সেমিফাইনালে শুরু থেকে কাতড়াচ্ছিলেন ব্যথায়। মেডিক্যাল টাইমআউট নেন দুইবার। রক্ষা হয়নি তাতেও। ৭-৬, ৬-২ গেমে পিছিয়ে থাকার সময় সরে দাঁড়ান নাদাল। চোখে-মুখে তখন রাজ্যের হতাশা। সমর্থকদের কাছে ক্ষমা চেয়ে জানালেন, খেলা চালিয়ে যাওয়াটা কঠিন হয়ে পড়েছিল। প্রচণ্ড ব্যথায় নড়তে পারছিলাম না। কোর্টে একজন খেলছিল আরেকজন শুধু দাঁড়িয়ে। আমি অবসর নিতে ঘৃণা করি, এর পরও করার ছিল না কিছু।

এ বছর অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের কোয়ার্টার ফাইনালেও মারিন সিলিচের বিপক্ষে পঞ্চম সেট থেকে সরে দাঁড়িয়েছিলেন নাদাল। ৩২ বছর বয়সী এই তারকার জন্য চোটমুক্ত হয়ে খেলাটা চ্যালেঞ্জের এখন। ২৯ বছর বয়সী দেল পোত্রোও ক্যারিয়ারজুড়ে লড়াই করেছেন চোটের সঙ্গে। ২০০৯ সালে রজার ফেদেরারকে হারিয়ে ইউএস ওপেন জেতার পর থেকে ক্যারিয়ারটা পরস্ফুিটিত হয়নি ইনজুরির কারণে। ৯ বছর পর ফ্লাশিং মিডোর ফাইনালের টিকিট পেয়ে খুশি এই আর্জেন্টাইন, নাদালের জন্য খারাপ লাগছে। চোটের জন্য আমাকেও কোর্ট ছাড়তে হয়েছে বহুবার, জ্বালাটা ভালো জানি আমি। সত্যি বলতে ইউএস ওপেনে আরো একবার ফাইনাল খেলব কল্পনা করিনি। আমার জন্য বিশেষ কিছু এটা।

চোটের জন্য নোভাক জোকোভিচও ভুগেছেন গত বছর। কয়েকটি গ্র্যান্ড স্লাম বিরতি দিয়ে এ বছর ফিরে জিতেছেন উইম্বলডন। বছরের শেষ গ্র্যান্ড স্লাম ইউএস ওপেনের ফাইনালেও পৌঁছেছেন দাপটে। আজকের প্রতিপক্ষ দেল পোত্রোর বিপক্ষে ১৮ বারের দেখায় জিতেছেন ১৪ ম্যাচ। এর দুটি ২০০৭ ও ২০১২ ইউএস ওপেনে কোনো সেট না হেরে। ৩১ বছর বয়সী জোকোভিচ আজ জিতলে ভাগ বসাবেন সাম্প্রাসের ১৪ গ্র্যান্ড স্লামের রেকর্ডে। নাদাল বিদায় নিলেও পোত্রোকে অবশ্য সহজ প্রতিপক্ষ মানছেন না তিনি, এবারই প্রথম কোনো গ্র্যান্ড স্লামের ফাইনালে খেলছি পোত্রোর বিপক্ষে। ওর আক্রমণাত্মক টেনিস পছন্দ আমার। ইনজুরির সঙ্গে লড়াই করে যেভাবে খেলে চলেছে সেটা অনুপ্রেরণার অন্যদের জন্য। পোত্রো বড় ম্যাচের খেলোয়াড়। উপভোগ্য হবে ম্যাচটি। এএফপি

খেলা- এর আরো খবর