English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

অথচ শিরোপায় চোখ নেই তাদের!

  • ৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০

নেপাল সমতায় ফেরার পর জয়সূচক গোলের জন্য যখন মরিয়া পাকিস্তান; তখনই কাউন্টার অ্যাটাকে মোহাম্মদ আলী ম্যাচ শেষ করে দিয়েছেন নিখুঁত এক হেড নিয়ে। তাতেই সাফ সুজুকি কাপের উদ্বোধনী ম্যাচটা ২-১ গোলে জিতে নেয় তিন বছর আন্তর্জাতিক ফুটবলের বাইরে থাকা পাকিস্তান। আর হারে বুক ভাঙল নেপালের। দক্ষিণ এশিয়ার অধরা শিরোপা জয়ের স্বপ্ন চোখে তারা ঢাকায় এসেছে। ছবি : কালের কণ্ঠ

এটা ভারতের যুবদলেরও নিজেদের প্রমাণ করার টুর্নামেন্ট। তবে ভারতের ইংলিশ কোচ স্টিফেন কনস্ট্যানটাইনও নিজেদের ফেভারিট আখ্যা দিয়ে খেলোয়াড়দের ওপর বাড়তি চাপ তৈরি করতে চান নন, প্রতিবারের মতো আমরা সাফে অংশ নিতে এসেছি। আমাদের ভালো সম্ভাবনা আছে, তবে ফেভারিট হিসেবে শুরু করতে চাই না আমরা। ছেলেরা টুর্নামেন্ট শুরু করার জন্য মুখিয়ে আছে। জানি, প্রতিপক্ষ আমাদের বিপক্ষে ঝাঁপিয়ে পড়বে। এ রকম অবস্থায় এই তরুণ দল কী রকম খেলে সেটা দেখার অপেক্ষায় আছি।

ক্রীড়া প্রতিবেদক : পরাশক্তির তালিকা থেকে ছুটি হয়ে গেছে বাংলাদেশের। তাদের ফুটবলে নেই আগের সেই দাপট, এখন হারিয়ে খুঁজছে নিজেদের। তাদের অধোগতির সময় জাগরণ ঘটেছে মালদ্বীপ ফুটবলের। তারা এখন দক্ষিণ এশীয় ফুটবলের পরাশক্তি, সঙ্গে পুরনো শক্তি ভারতীয় ফুটবল পার করছে নতুন নতুন মালইলস্টোন। এ দুই দল পড়েছে সাফের এ গ্রুপে, মূল লড়াইটা হবে ওখানে। শিরোপার দৌড়েও তারা এগিয়ে। তবে ভারত অনূর্ধ্ব-২৩ দল নিয়ে ঢাকা আসায় মালদ্বীপকে ফেভারিট মানছে অনেকে।

অনেক দিন পর সাফের মালদ্বীপ আলী আশফাকহীন। দুর্দান্ত গোল মেশিনকে ছাড়া ঢাকা আসার আগে মালদ্বীপের কোচ পিটার সেগ্রেট পড়েছিলেন সমালোচনার মুখে। এই ক্রোয়েশিয়ান বংশোদ্ভূত জার্মান কোচের উদ্দেশ্য একটি নতুন দল গড়া। এই মালদ্বীপেও আছে তারুণ্যের ঝলকানি। আছে আলী ফাসির, ফজলদের মতো ফরোয়ার্ড। সুবাদে সাফের দ্বিতীয় শিরোপার স্বপ্ন তারা দেখতেই পারে। কিন্তু পিটার যে এই টুর্নামেন্টে নিজেদের এগিয়ে রাখতে চান না। মালদ্বীপের কোচের ভয় যেন ভারতকে নিয়ে। ভারতের অনূর্ধ্ব-২৩ দল এলেও ভারতীয় ফুটবলের অগ্রগতি যেন তাঁকে চমকে দিচ্ছে। কিছুদিন আগেও একটি আমন্ত্রণমূলক টুর্নামেন্টে তাদের অনূর্ধ্ব-২০ দল হারিয়েছে আর্জেন্টিনাকে। সেই প্রসঙ্গ টেনে পিটার মালদ্বীপকে ফেভারিট হিসেবে আগেভাগে ধরতে চান না, মাঠে খেলে আমাদের প্রমাণ করতে হবে। নিজেদের লেভেল দেখাতে হবে খেলোয়াড়দের।

ঠিক একইভাবে এটা ভারতের যুবদলেরও নিজেদের প্রমাণ করার টুর্নামেন্ট। তবে ভারতের ইংলিশ কোচ স্টিফেন কনস্ট্যানটাইনও নিজেদের ফেভারিট আখ্যা দিয়ে খেলোয়াড়দের ওপর বাড়তি চাপ তৈরি করতে চান নন, প্রতিবারের মতো আমরা সাফে অংশ নিতে এসেছি। আমাদের ভালো সম্ভাবনা আছে, তবে ফেভারিট হিসেবে শুরু করতে চাই না আমরা। ছেলেরা টুর্নামেন্ট শুরু করার জন্য মুখিয়ে আছে। জানি, প্রতিপক্ষ আমাদের বিপক্ষে ঝাঁপিয়ে পড়বে। এ রকম অবস্থায় এই তরুণ দল কী রকম খেলে সেটা দেখার অপেক্ষায় আছি। সাতবারের চ্যাম্পিয়নরা ঢাকায় এসেছে তাদের তরুণ দলের পরীক্ষা নিতে। সুনীল ছেত্রী ও গুরপ্রীত সিং সাধুর মতো স্ট্রাইকারদের রেখে ইংলিশ কোচ সাফের দল সাজিয়েছেন তরুণ ফুটবলারদের নিয়ে। যাঁরা হবেন ভারতীয় ফুটবলের সামনের দিনের তারকা। এখানে আসার আগে তাঁরা ট্রেনিং ক্যাম্প করেছেন অস্ট্রেলিয়ায়। ১৭ দিনের প্রস্তুতি পর্বে তাঁরা তিনটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছেন অস্ট্রেলিয়ার তিনটি ক্লাব দলের সঙ্গে। কনস্ট্যানটাইনের চোখে ওই ক্যাম্পের অনুভূতি দুর্দান্ত, ওই তিনটি ম্যাচ আমাদের ছেলেদের জন্য খুব উপকারী হয়েছে। সিডনি এফসির প্রথম একাদশের বিপক্ষে তারা খেলেছে, সুবাদে তরুণদের শেখার ছিল অনেক। তিনটি ম্যাচেই অনেক ইতিবাচক জিনিস পেয়েছি, যা সামনের দিনগুলোতে আমাদের কাজে লাগবে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আজকের ম্যাচে বোঝা যাবে তরুণ ভারতের সামর্থ্য, এই ম্যাচ দিয়েই শুরু হচ্ছে গতবারের চ্যাম্পিয়নদের সাফ মিশন।

ভারতীয় তরুণ দলের নেতৃত্ব দেবেন ডিফেন্ডার শুভাশীষ বসু। এই তরুণ ডিফেন্ডার গত মৌসুমে ব্যাঙ্গালুরু এফসির হয়ে দুর্দান্ত খেলে এবার লাফ দিয়েছেন ইন্ডিয়ান সুপার লিগের দল মুম্বাই সিটি এফসিতে। তাঁর ওপর কোচেরও ভীষণ আস্থা, ট্রেনিংয়েও সে খুব উন্নতি করেছে। প্রথম কিছুদিন তাকে যথেষ্ট পরিশ্রম করতে হয়েছে। তার জন্য এটা খুব স্পেশাল মুহূর্ত। শুভাশীষও অধিনায়ক হয়ে দারুণ খুশি, আমার ওপর আস্থা রেখেছেন কোচ, এ জন্য তাঁকে ধন্যবাদ। আমি চেষ্টা করব নিজের সেরাটা দিয়ে কোচকে তৃপ্ত করতে।

টুর্নামেন্টের সাতবারের চ্যাম্পিয়ন দলের কোচ শিরোপা ছাড়া তৃপ্ত হতে পারেন না। সেটার প্রথম পরীক্ষা হবে আগামী ৯ সেপ্টেম্বর ভারত-মালদ্বীপ লড়াইয়ে। এ ম্যাচই বলে দিতে পারে টুর্নামেন্টের শেষ অঙ্কে কী থাকছে।

খেলা- এর আরো খবর