English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

মুখোমুখি প্রতিদিন

সাফের প্রচারণা যে হয়নি তা মানছি

  • ৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০

সাফ ফুটবলের মতো বড় একটি আসর আজ মাঠে গড়াচ্ছে, কিন্তু সাধারণে সেই উন্মাদনা নেই। প্রচার-প্রচারণার অবস্থাও বেহাল। যেনতেনভাবে প্রস্তুত করা হয়েছে টুর্নামেন্টের ভেন্যু বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম। আয়োজনের এসব প্রসঙ্গেই কাল কালের কণ্ঠ স্পোর্টসের মুখোমুখি হয়ে কথা বলেছেন সাফের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল হক হেলাল

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : সাফের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নিজ দেশে সাফ আয়োজনে কেমন চ্যালেঞ্জ অনুভব করছেন?

আনোয়ারুল হক হেলাল : চ্যালেঞ্জ তো আসলে আমার কিছু না। কারণ আমরা সরাসরি আয়োজন করি না। সেই দায়িত্ব বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের। তবে আমি সাফের সাধারণ সম্পাদক, সালাউদ্দিন সাহেব সভাপতি। বাংলাদেশে সাফ আয়োজনে অভিযোগ উঠলে সেটা আমাদের ওপর এসে পড়বে বলে মনে করি। এখন এটাই কামনা ভালোভাবে যেন টুর্নামেন্টটা শেষ হয়।

প্রশ্ন : শেষ মুহূর্তে তড়িঘড়ি করে করা হচ্ছে সব, ফ্লাড লাইট বসানো, মাঠ সংস্কার...

হেলাল : বাফুফেকে আমরা চার মাস আগে সব চাহিদা দিয়েছি। জটিলতা হলো তাদের যেতে হয় আবার এনএসসিতে। সেখানে অনেক কিছু আটকে যায়, শেষ মুহূর্তে তা হয়।

প্রশ্ন : প্রচারণাও তো তেমন নেই, ঢাকায় এত বড় একটা আসর, তার কিন্তু আমেজ পাওয়া যাচ্ছে না।

হেলাল : মানছি প্রচারণা হয়নি তেমন। আমরা বলার পরে ওরা এখন কিছু করছে, যেমন মাইকিং টাইকিং হচ্ছে। তবে আমাদের মিডিয়া যথেষ্ট সক্রিয় বলতে হবে। ভারত বা অন্য যেকোনো দেশের চেয়ে সাফ নিয়ে আমাদের মিডিয়া যেভাবে আগ্রহ দেখাচ্ছে, তা সবার কাছে প্রশংসনীয় হচ্ছে।

প্রশ্ন : আয়োজন কি সেই মান ছুঁতে পারছে, আজ বাফুফে ভবনে বেশ হযবরল অবস্থার মধ্যে হলো সাত দেশের সংবাদ সম্মেলন...

হেলাল : মানছি এই আয়োজনটা কোনো একটা হোটেলেই করা উচিত ছিল। দুটি হোটেলে ভাগ করে খেলোয়াড়দের রাখাতেই তেমন কিছু আর করা হয়নি। বাফুফেতে বেশ গাদাগাদির মধ্যে প্রগ্রামটা আপনাদের কাভার করতে হয়েছে।

প্রশ্ন : আয়োজনের মানের প্রশ্নে আসলে অভিযোগ আরো, স্টেডিয়ামের বারান্দায় টুল পেতে বসে সাফের টিকিট বিক্রি, ট্রফি উন্মোচন একটা করপোরেট হাউসের অফিসে আর মূল ভেন্যুতে এত এত ভাঙা চেয়ার, সাফের মান কোথায় নিয়ে ঠেকিয়েছে?

হেলাল : সাফের ভেন্যুতে ভাঙা চেয়ার আসলে দুঃখজনক। ওরা আজ তড়িঘড়ি করে সব সরাচ্ছে। এটা তো আরো কয়েক দিন আগেও করা যেত। আর ট্রফির বিষয়টাও আমাদের নয়, এটা স্পন্সরের এখতিয়ার। প্রচারণার অভাবের কথা মানছি। তবে শেষ পর্যন্ত দর্শক এলেই আসরটা সার্থক হবে। আরেকটা দুশ্চিন্তা আছেবৃষ্টি। আমাদের একটাই মাঠ, প্রতিদিন দুটি করে খেলা, বৃষ্টি হলে দফারফা হয়ে যাবে মাঠের অবস্থা।

খেলা- এর আরো খবর