English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

সেরা তিনেও নেই মেসি

  • ৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০

২০০৭ সালে এই মঞ্চে ওঠেন তিনি প্রথমবার; বিশ্বসেরা তিন ফুটবলারের একজন হয়ে। সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার সেবার জিততে পারেননি। তবে সেই শুরুর পরের ১১ বছর ধরে ফিফার সেরা খেলোয়াড়ত্রয়ীর একজন হিসেবে সব সময় ছিল ওই নামটিলিওনেল মেসি। এবারই হচ্ছে ব্যতিক্রম। ফিফা দ্য বেস্ট পুরস্কারের জন্য কাল যে তিনজনের সংক্ষিপ্ত তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে, সেখানে নেই মেসির নাম।

ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো, লুকা মডরিচ ও মোহামেদ সালাহর মধ্যে একজনের হাতে উঠবে শ্রেষ্ঠত্বের স্মারক।

কিছুদিন আগে ঘোষণা করা উয়েফার বর্ষসেরা ফুটবলারের সেরা তিনেও ছিলেন এ তিনজন। সেখানেও জায়গা হয়নি মেসির। বার্সেলোনার হয়ে স্প্যানিশ লিগ ও কোপা দেল রের দ্বিমুকট জিতলেও চ্যাম্পিয়নস লিগে ছিটকে গেছেন কোয়ার্টার ফাইনালে। আবার বিশ্বকাপেও প্রত্যাশিত জাদু দেখাতে পারেননি। সে কারণে সেরা তিনে থাকা হয়নি মেসির। এক দিকে অবশ্য চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রোনালদোর সঙ্গে ব্র্যাকেটবন্দি হলেন তিনি। ২০০৭ থেকে ফিফার সেরা তিনে ওই পর্তুগিজের নামও ছিল অবধারিতব্যতিক্রম শুধু ২০১০ সাল। সেবার মেসির সঙ্গী বার্সার দুই সতীর্থ আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা ও জাভি এর্নান্দেস। এবার মেসি বাদ পড়ায় সেরা তিনে থাকার সংখ্যায় সমতা এলো রোনালদো-মেসির।

রোনালদোর সামনে সুযোগ অবশ্য চূড়ান্ত সাফল্যে মেসিকে ছাড়িয়ে যাবার। দুজনই এখন পর্যন্ত ফিফা বর্ষসেরা হয়েছেন পাঁচবার করে। এবার জিতলে পর্তুগিজ মহাতারকার রাজত্ব হবে একক। তবে কাজটি সহজ নয় মোটেই। কিছুদিন আগে উয়েফার বর্ষসেরায় যেমন রিয়াল মাদ্রিদের পুরনো সতীর্থ লুকা মডরিচের কাছে হেরে গেছেন রোনালদো। এ নিয়ে তাঁর এজেন্ট ও বোনের খেদোক্তির কথাও এসেছে গণমাধ্যমে। রিয়াল মাদ্রিদকে চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ে রোনালদোর ১৫ গোলের পাশাপাশি চার অ্যাসিস্ট। সেখানে মডরিচের গোল-অ্যাসিস্ট একটি করে। তবে এ মিডফিল্ডার এগিয়ে গেছেন বিশ্বকাপের পারফরম্যান্সে। রূপকথার যাত্রায় ক্রোয়োশিয়াকে ফাইনালে তোলার পথে সবচেয়ে বড় অবদান তাঁর। জিতেছেন বিশ্বকাপের সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার সোনালি বল। এরপর উয়েফার বর্ষসেরার স্বীকৃতি। রোনালদোর ষষ্ঠ-শ্রেষ্ঠত্বে সবচেয়ে বড় হুমকি তাই মডরিচই। লিভারপুলের জার্সিতে গেল মৌসুমে ৪৪ গোল করা সালাহর হয়তো তৃতীয় হয়েই তৃপ্ত থাকতে হবে।

২৪ সেপ্টেম্বর লন্ডনে এক অনুষ্ঠানে ঘোষণা করা হবে এ পুরস্কার। যা নির্ধারণে এক-চতুর্থাংশের সমান অংশীদারিত্ব ফিফার অন্তর্ভুক্ত দেশগুলোর জাতীয় দলের কোচ, অধিনায়ক, নির্ধারিত সাংবাদিক প্যানেল ও সমর্থকদের ভোটের। বিশ্বকাপের ফাইনালিস্ট দুই কোচ ফ্রান্সের দিদিয়ের দেশম, ক্রোয়েশিয়ার জ্লাতকো দালিচ ও রিয়াল মাদ্রিদকে চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতানো জিনেদিন জিদানের ভেতর সেরা কোচ হওয়ার লড়াইয়ের নিয়ামকও ওই ভোটাভুটি। এএফপি

খেলা- এর আরো খবর