English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সংঘর্ষে যুবক খুন, আটক ২

  • নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   
  • ৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০

নগরের খুলশী থানার ঝাউতলা এলাকায় রনি-সাইফুল নামে দুপক্ষের মধ্যে বিরোধের জের ধরে সংঘর্ষে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। তাঁর নাম শুক্কুর। এ ঘটনায় রনি ও সাব্বিরকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে পুলিশ। গতকাল শনিবার ভোরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে শুক্কুরের মৃত্যু হয়। আগের রাতে দুপক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছিল। নিহত শুক্কুর সাইফুল পক্ষের।

ঘটনার বিষয়ে খুলশী থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ নাসির উদ্দিন কালের কণ্ঠকে বলেন, ঝাউতলা এলাকায় রনি ও সাইফুল গ্রুপের মধ্যে বিরোধের জের ধরে সংঘর্ষ বাঁধে। এ সময় উভয়পক্ষের সাতজন আহত হয়। তাদের চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্কুর নামে একজনের মৃত্যু হয়েছে। নিহত শুক্কুরের মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে দাফনের জন্য পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

তিনি জানান, এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে। তবে পুলিশ রনি ও সাব্বির নামের দুজনকে আটক করেছে। তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির নায়েক শীলাব্রত বড়ুয়া জানান, শুক্রবার রাতে সাতজন ভর্তি হয়েছিলেন। রাতেই ছয়জন প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে হাসপাতাল ছেড়ে চলে যান। অন্যজনকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছিল। তিনি শনিবার সকালে মারা যান। তাঁর মাথায় গুরুতর আঘাত ছিল বলে ডাক্তাররা জানিয়েছেন।

ঘটনার বিষয়ে নিহত শুক্কুরের বন্ধু মোহাম্মদ রুবেল সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ঝাউতলা এলাকার বাসিন্দা সাইফুল বাড়ি নির্মাণের জন্য ট্রাক করে ইট আনেন। ইট নামানোর সময় সেখানে রনি ও তাঁর বন্ধুরা উপস্থিত হয়ে চাঁদা দাবি করেন। না হলে ইট নামাতে দেওয়া হবে না বলে জানিয়ে দেন। এ সময় রনি দুই লাখ টাকা দাবি করেন। এরপর সাইফুল তাঁর বন্ধু শুক্কুরকে ডেকে ঘটনাস্থলে আনেন। সঙ্গে আরও কয়েকজন জড়ো হয়ে রনির সঙ্গে তর্ক শুরু করেন। এক পর্যায়ে উভয়পক্ষের লোকজন লোহার রড ও ইট নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এ সময় শুক্কুর মাথায় গুরুতর আঘাত পান। পরদিন সকালে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্কুরের মৃত্যু হয়। নিহত শুক্কুর এলাকায় দর্জির কাজ করতেন।

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন- এর আরো খবর