English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

রাতে কলেজের গাছে করাত

  • পটুয়াখালী প্রতিনিধি   
  • ৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০

পটুয়াখালী সরকারি কলেজের অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে ক্যাম্পাসের গাছ কেটে বিক্রির অভিযোগ উঠেছে। গত রবিবার রাতে গাছ কেটে নেওয়ার সময় শিক্ষার্থীরা বাধা দিলে শ্রমিকরা জানায়, অধ্যক্ষের নির্দেশে গাছ কাটা হচ্ছে।

রবিবার রাত ১০টার দিকে কলেজের পেছনের গেটে গিয়ে দেখা যায়, একটি মেহগনি গাছ কেটে মাটিতে ফেলে ছোট ছোট টুকরা করা হচ্ছে। এ সময় জানতে চাইলে মো. ওলিউল ইসলাম ওলি নামের গাছকাটা শ্রমিক বলেন, আমি কলেজের নাইট গার্ড। কলেজের প্রিন্সিপাল স্যার গাছ কাটতে বলেছেন, তাই কাটছি। তাঁর সঙ্গে থাকা অন্য শ্রমিকরাও একই কথা বলে।

তাৎক্ষণিক মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক জয়দেব সজ্জন বলেন, মরে যাওয়া গাছ কাটতে বলেছি এবং সেগুলো কাটা হচ্ছে। তবে কলেজের গাছ কাটতে কোনো কমিটি গঠন কিংবা নিয়মনীতি অনুসরণ করা হয়েছে কি না এমন প্রশ্নের উত্তর দেননি তিনি। তিনি মরা গাছ কাটার কথা বললেও যে গাছটি কেটে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল সেটি জীবিত। অধ্যক্ষ বলেন, দিনেই (গাছ) কাটার কথা, রাতে কাটতে নিষেধ করছি এখন।

এদিকে কলেজের একাধিক শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও কর্মচারী নাম না প্রকাশের শর্তে বলেন, কলেজ অধ্যক্ষ একাধিক প্রভাবশালী শিক্ষককে নিয়ে বিভিন্ন সময় কলেজের মূল্যবান গাছ রাতে কেটে নিয়েছেন। কোনো নিয়মনীতি মানা হয়নি। ক্যাম্পাসে কেটে নেওয়া গাছের অনেক চিহ্ন (গাছের গোড়া) পড়ে আছে। যেসব তাজা গোড়া পড়ে আছে তা সম্প্রতি কেটে নেওয়া। আর পুরনো গোড়াগুলোর গাছ আগে কেটে নেওয়া। গত ১০ বছরে বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় অর্ধশত গাছ এভাবে রাতে কেটে নেওয়া হয়েছে। অনেক গাছের গোড়ার এখন অস্তিত্বও নেই।

কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মো. বেল্লাল সিকদার রিয়াজ বলেন, কলেজের এ মূল্যবান সম্পদ (গাছ) উজাড় করা হচ্ছে। গাছ কাটায় জড়িতদের তদন্ত সাপেক্ষে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

প্রিয় দেশ- এর আরো খবর