English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

শ্রীপুরে যৌতুকের বলি গৃহবধূ ঝুমা

  • আঞ্চলিক প্রতিনিধি, গাজীপুর   
  • ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০

দরিদ্র কৃষি শ্রমিকের মেয়ে ঝুমা সংসার করার অনেক স্বপ্ন নিয়ে স্বামীর ঘরে গিয়েছিলেন। বিয়ের পর প্রায় দুই মাস স্বামীর ঘরে মোটামুটি ভালোই কেটেছিল তাঁর। এর পরই তাঁর স্বামী ৫০ হাজার টাকা যৌতুক দাবি করেন। দরিদ্র বাবার অপারগতার কথা জানানোর কারণে ঝুমাকে সইতে হয় স্বামীর অবর্ণনীয় নির্যাতন। স্বামীর নির্যাতনের সঙ্গে একপর্যায়ে যুক্ত হন শ্বশুর-শাশুড়িও। অনেক সময় ঝুমাকে খেতে দেওয়া হতো না। বারবারই হুমকি দেওয়া হতো মেরে ফেলার। অনেক সময় মা-বাবাকে ফোন করেও ঝুমা যেকোনো সময় তাঁর লাশ মিলবে বলে কান্নায় ভেঙে পড়তেন। ঝুমার সেই আশঙ্কাই সত্যি হলো!

গত রবিবার সকালে বসতঘর থেকে ঝুমার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার আবদার গ্রামে মর্মন্তুদ এ ঘটনা ঘটে। নিহত ঝুমা আক্তার (২২) পাশের বরমী ইউনিয়নের বালিয়াপাড়া গ্রামের সোহাগ মিয়ার স্ত্রী। আবদার এলাকার ছমির উদ্দিনের বাড়ির একটি কক্ষে ভাড়ায় থেকে পাশাপাশি দুটি পোশাক কারখানায় চাকরি করতেন ঝুমা ও তাঁর স্বামী। মা-বাবার অভিযোগ, দাবি করা যৌতুক না পেয়ে ঝুমার ওপর নির্যাতন চালিয়ে তাঁকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে।

শ্রীপুর মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবদুল মালেক জানিয়েছেন, ঘটনাটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা তা ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর জানা যাবে। তবে এ ঘটনায় গত রবিবার রাতে দুজনকে আসামি করে শ্রীপুর থানায় আত্মহত্যা প্ররোচনার অভিযোগে একটি মামলা করা হয়েছে। আসামিরা হলেন সোহাগ মিয়া (২৫) ও তাঁর খালু আবদুল আওয়াল (৫৫)। ওই দিনই পুলিশ সোহাগকে গ্রেপ্তার করে। গতকাল দুপুরে থানার ওসি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

খবর- এর আরো খবর