English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

আড়াইহাজারে ‘বন্দুকযুদ্ধ ডাকাত’ নিহত

বগুড়ায় গুলিবিদ্ধ দুই মাদক কারবারি গ্রেপ্তার

  • নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া ও আড়াইহাজার (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি   
  • ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে কথিত বন্দুকযুদ্ধে এক ডাকাত নিহত হয়েছে। এ ছাড়া বগুড়ার দুপচাঁচিয়া উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধের পর গুলিবিদ্ধ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গতকাল রবিবার ভোরে আড়াইহাজার উপজেলার মরদাসাদি এলাকা থেকে বন্দুকযুদ্ধে নিহত জাকির হোসেনের (৩৫) মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। পুলিশের দাবি, ডাকাতির মালামাল ভাগাভাগি নিয়ে দুই দল ডাকাতের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধে তিনি মারা যান। তিনি আন্তজেলা ডাকাতদলের সদস্য।

নিহত জাকির হোসেন রাজধানী ঢাকার দক্ষিণখান থানার গোয়ালটেক এলাকার নুরু মিয়ার ছেলে। পুলিশের দাবি, তাঁর বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ জেলার বিভিন্ন থানা, ময়মনসিংহের ত্রিশাল থানা, টাঙ্গাইল সদর থানাসহ বিভিন্ন থানায় ১০ থেকে ১২টি মামলা রয়েছে।

আড়াইহাজার থানার ওসি এম এ হক জানান, রবিবার ভোরে ডাকাতি শেষে মরদাসাদি এলাকার একটি ক্ষেতে বসে মালামাল ভাগাভাগি করছিল ডাকাত সদস্যরা। ওই সময় ভাগাভাগি নিয়ে নিজেদের মধ্যে সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। গোলাগুলি ও ডাকাতদের চিৎকার শুনে টহল পুলিশ সেখানে গেলে অন্যরা পালিয়ে যায়। তবে জাকির হোসেনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে পুলিশ উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। পরে সেখানকার ডাক্তার তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশি পিস্তল, একটি গুলি ও গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে।

ওসি আরো জানান, নিহতের শরীরে গুলি ও ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন আছে। তবে এখনো নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না কিভাবে তাঁর মৃত্যু হয়েছে।

অন্যদিকে বগুড়ার দুপচাঁচিয়া উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধের পর গ্রেপ্তার করা হয় গুলিবিদ্ধ দুই মাদক কারবারিকে। তারা হলো উপজেলা সদরের ডিমশহর গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে মাহবুবুর রহমান মাহবুব (৩৬) ও একই এলাকার নয়াপাড়া গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে জাকারিয়া (২৮)।

থানা সূত্র জানায়, গোপন সূত্রে পুলিশ জানতে পারেউপজেলা সদরের পশ্চিম আলোহালী এলাকায় রইচ উদ্দিনের আমবাগানে কয়েকজন মাদক কারবারি নিজেদের মধ্যে ইয়াবা ট্যাবলেটের চালান ভাগবাটোয়ারা করছে। এ সংবাদ পেয়ে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (আদমদিঘী সার্কেল) আলমগীর রহমান, দুপচাঁচিয়া থানার ওসি আব্দুর রাজ্জাক ও পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শহিদুল ইসলামের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ওই বাগানে অভিযান চালান। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক কারবারিরা পুলিশের ওপর ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায় ও গুলি ছুড়তে শুরু করে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছোড়ে। একপর্যায়ে মাদক কারবারিরা পালিয়ে গেলে পুলিশ মাহবুব ও জাকারিয়াকে গ্রেপ্তার করে। মাহবুবুর রহমানের দেহ তল্লাশি করে তার হেফাজতে থাকা ৩৫০ পিস ইয়াবা ও জাকারিয়ার হেফাজতে থাকা ১০০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

অভিযান শেষে ঘটনাস্থল থেকে পাঁচটি ককটেল ও দুটি সামুরাই উদ্ধার করা হয়। ঘটনার সময় মাহবুবুর রহমানের বাম হাঁটুতে গুলি লাগে ও জাকারিয়ার শরীরের বিভিন্ন স্থান জখম হয়। গুলিবিদ্ধ মাদক কারবারি মাহবুবুর রহমানের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় পুলিশ রাতেই তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ব্যাপারে দুপচাঁচিয়া থানায় পুলিশ বাদী হয়ে পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে।

খবর- এর আরো খবর