English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

১০ টাকা দরে চাল বিক্রি শুরু হয়নি

ছয় জেলায় নানা সঙ্কট

  • কালের কণ্ঠ ডেস্ক   
  • ৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০

সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় গতকাল সোমবার থেকে হতদরিদ্র মানুষের মধ্যে ১০ টাকা দরে চাল বিক্রি শুরু হওয়ার কথা থাকলেও তা শুরু হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। ছয় জেলায় খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গতকাল এ কর্মসূচি শুরু হয়নি। এ জন্য সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা বোরো সংগ্রহ অভিযান শেষ না হওয়া, বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির সহায়তা পুষ্টি চাল না আসা, ডিলার নিয়োগ সম্পন্ন না হওয়া, কমিটি চূড়ান্ত না হওয়াসহ বিভিন্ন কারণ দেখিয়েছেন। তবে গতকাল থেকে এই চাল পাওয়ার অধীর আগ্রহ ছিল বলে জানিয়েছে অনেক উপকারভোগী।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য ২০১৬ সালে এই কর্মসূচি উদ্বোধন করেন। নীতিমালা অনুযায়ী, প্রতি বছর দুই দফায় মার্চ-এপ্রিল এবং সেপ্টেম্বর, অক্টোবর ও নভেম্বর এই পাঁচ মাস দেশের ৫০ লাখ হতদরিদ্র পরিবারকে ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রি করা হবে। আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর

বরিশাল : নিয়ম অনুযায়ী গত ১ সেপ্টেম্বর থেকে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির অধীনে ১০ টাকা দরে চাল বিক্রি শুরুর কথা। কিন্তু ছুটির কারণে দুই দিন পর এ কার্যক্রম শুরু হওয়ার কথা থাকলেও গতকাল বরিশালে তা শুরু হয়নি। বরিশাল আঞ্চলিক খাদ্য বিভাগ জানিয়েছে, বরিশাল বিভাগে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির কার্যক্রম শুরু হবে ১৫ সেপ্টেম্বরের পর থেকে। কারণ এ বিভাগে ওই দিন বোরো সংগ্রহ অভিযান শেষ হবে।

বামনা (বরগুনা) : বরগুনার বামনা উপজেলায়ও ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রি শুরু হয়নি। কিন্তু এ উপজেলার প্রায় চার হাজার উপকারভোগী অধীর আগ্রহে অপেক্ষায় আছে চাল বিক্রির জন্য। বরিশাল বিভাগের ছয় জেলায় এ কর্মসূচি শুরু হতে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সময় লাগবে বলে আঞ্চলিক খাদ্য বিভাগ জানালেও স্থানীয় কর্মকর্তারা বলছেন ভিন্ন কথা।

রাজবাড়ী : রাজবাড়ী জেলায়ও ১০ টাকা কেজি দরের চাল বিক্রি শুরু হয়নি। জেলা খাদ্য অফিস জানিয়েছে, এবার জেলায় এ কর্মসূচির সুবিধাভোগীর সংখ্যা ৫৬ হাজার ২১২ জন। কিন্তু গতকাল ডিলাররা চাল উত্তোলন করেনি।

কুড়িগ্রাম : দারিদ্র্যপীড়িত এই জেলায়ও গতকাল ১০ টাকা দরে চাল বিক্রির কার্যক্রম শুরু হয়নি। কুড়িগ্রামের জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. মুহিবুল জানান, ছুটির পর ডিলারদের চিঠি দেওয়া হয়েছে। প্রস্তুতি চলছে। আশা করা হচ্ছে দু-তিন দিনের মধ্যে কার্যক্রম শুরু করা যাবে।

হবিগঞ্জ : এই জেলায়ও গতকাল থেকে ১০ টাকা দরে চাল বিক্রি শুরু হয়নি। হবিগঞ্জ সদর খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান চৌধুরী জানান, কমিটি গঠনসহ আরো অনেক কাজ বাকি আছে। এ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার পর আগামী বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হতে পারে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়াও গতকাল এই কর্মসূচি শুরু হয়নি। সদর, আখাউড়া ও সরাইল উপজেলায় দায়িত্বে থাকা খাদ্য কর্মকর্তা কাওছার সজীব জানান, বিভিন্ন জায়গায় ডিলার নিয়োগসহ বিভিন্ন প্রস্তুতি চূড়ান্ত না হওয়ায় গতকাল এ কর্মসূচি শুরু হয়নি। আগামী বৃহস্পতিবার থেকে এ কার্যক্রম শুরু হতে পারে।

খবর- এর আরো খবর