English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

আসামি বড় ভাই

হাতকড়া ছোট ভাইকে, ছিনিয়ে নিল পরিবারের সদস্যরা

  • নড়াইল প্রতিনিধি   
  • ৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০

নড়াইলের কালিয়ায় হাতকড়া পরা অবস্থায় পুলিশের কাছ থেকে সেকেন্দার হোসেন নামের এক ব্যক্তিকে ছিনিয়ে নিয়েছে পরিবারের লোকেরা। এ সময় সংঘর্ষে এক পুলিশ কনস্টেবল আহত হয়েছেন। গতকাল রবিবার সকালে উপজেলার আমতলা গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করলেও হাতকড়া নিয়ে পালানোর বিষয়টি অস্বীকার করেছে। আহত পুলিশ কনস্টেবল শাহীনুর রহমানকে কালিয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ আহত হওয়ার ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

পুলিশ সূত্র জানায়, উপজেলার আমতলা গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের জান্নাত গ্রুপ ও হান্নান গ্রুপের মধ্যে গত ২৮ আগস্ট সংঘর্ষের ঘটনায় পাল্টাপাল্টি মামলা করা হয়। গতকাল সকালে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কালিয়া থানার এসআই সবুর হোসেন ফোর্স নিয়ে পলাতক আসামি ধরতে এলাকায় যান। এ সময় পুলিশের ফোর্স আমতলায় থাকলেও দুই কনস্টেবল লিয়াকতদের বাড়িতে ঢুকে তার ভাই সেকেন্দারকে আটক করে হাতকড়া পরায়। এ সময় পরিবারের অন্যদের ধস্তাধস্তিতে সেকেন্দার পালিয়ে যায়। ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে পুলিশ কনস্টেবল শাহিন আহত হন।

এলাকাবাসী জানায়, পুলিশ এজাহারভুক্ত আসামি লিয়াকত হোসেনকে গ্রেপ্তার করতে তার বাড়িতে যায়। এ সময় লিয়াকত বাড়িতে ছিল না। পুলিশ লিয়াকত ভেবে তার ছোট ভাই সেকেন্দারকে আটক করে হাতকড়া পরায়। আসামি না হওয়ায় পরিবারের লোকেরা ক্ষিপ্ত হয়ে সেকেন্দারকে পুলিশের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিলে সে হাতকড়া পরা অবস্থায় পালিয়ে যায়।

সেকেন্দারের মা জামিরন নেছা বলেছেন, সকালে আমার ছেলে সেকেন্দার বাড়ির পাশের ধান ছাঁটাই মেশিনে কাজ করছিল। সে কোনো মামলার আসামি নয়। পুলিশ শুধু শুধু তার হাতে হাতকড়া পরিয়েছে। মামলার আসামি না বলে বাড়ির মহিলারাও সেখানে গিয়ে পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি শুরু করলে একপর্যায়ে হাতকড়াসহ তাঁর ছেলে পালিয়ে য়ায়। তবে পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগ ঠিক নয়।

কালিয়া থানার ওসি শেখ শমশের আলী হাতকড়া নিয়ে আসামি পালিয়ে যাওয়ার কথা অস্বীকার করে বলেন, মামলার পলাতক আসামি লিয়াকত হোসেন লিকুকে এসআই সবুর হোসেন ও কনস্টেবল শাহীন আটক করলে বাড়ির মহিলারা পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি শুরু করে। ওই ফাঁকে পুলিশের হাত ফসকে আসামি লিকু পালিয়ে যায়। ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে পড়ে গিয়ে কনস্টেবল শাহীন আহত হয়েছেন। পলাতক আসামি লিয়াকতকে ধরতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে। ওই ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে তিনি জানান।

খবর- এর আরো খবর