English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

সিলেটে ওবায়দুল কাদের

ইভিএম নিয়ে ইসির সিদ্ধান্তে কোনো জটিলতা নেই

  • সিলেট অফিস   
  • ১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০

জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার নিয়ে নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত ও একজন নির্বাচন কমিশনারের সভা থেকে বেরিয়ে যাওয়ায় কোনো জটিলতা নেই বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। একই সঙ্গে তিনি বলেছেন, আগামী জাতীয় নির্বাচনে বিএনপি অংশ না নিলে সুযোগ বিতরণ করা হবে না।

সিলেট সার্কিট হাউসে গতকাল শুক্রবার সকালে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে ওবায়দুল কাদের এমন মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশন তো পাঁচজনকে নিয়ে। পাঁচজনের মধ্যে একজন নোট অব ডিসেন্ট দিতেই পারেন। ভিন্নমত থাকতেই পারে। এর জন্য জটিলতা তৈরি হবে কেন? একজনের মত যেমন আছে, গণতান্ত্রিক ধারায় বাকি চারজনেরও মত আছে। তাঁরা সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। এটাই তো গণতন্ত্রের বিউটি। এতে বোঝা যায় ইসিতে গণতন্ত্র আছে।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপি নির্বাচনে হেরে গিয়ে অনিয়ম ও কেন্দ্র দখলের অভিযোগ তুলতে পারবে না বলেই ইভিএম চাচ্ছে না। নির্বাচন ফ্রি অ্যান্ড ফেয়ার করতেই আমরা ইভিএম সাপোর্ট করি। নির্বাচন সম্পর্কে মানুষের খারাপ ধারণা দূর করতে ইভিএম দরকার। ইভিএম হচ্ছে আধুনিক ভোটিং পদ্ধতি। সিলেটেও বিএনপি দুটি ইভিএমের কেন্দ্রে জয়ী হয়েছে। তারা জিতলে মানবে আর হারলেই কারচুপির অভিযোগ তুলবে। আসন্ন নির্বাচনে বিএনপি জয়ী হতে পারবে না বলেই নানা অভিযোগ তুলছে।

আগামী নির্বাচনে বিএনপির অংশগ্রহণ প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, কেউ যদি নির্বাচনে না আসে তবে কারও জন্য নির্বাচনের ট্রেন থেমে থাকবে না। বিএনপি আগামী নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করলে আওয়ামী লীগের তাতে কিছু করার নেই। আগামী নির্বাচনে অংশ নেওয়ার ব্যাপারে বিএনপির চার দফা শর্ত সম্পর্কে তিনি বলেন, যাদের শক্তি-সামর্থ্য আছে, জনগণের প্রতি আস্থা আছে, জনসমর্থনের ব্যাপারে যারা কনফিডেন্ট, তারা এত শর্ত আরোপ করে না। ১৯৭০ সালের নির্বাচনের ইতিহাস টেনে তিনি বলেন, সে সময় বঙ্গবন্ধু কোনো শর্ত আরোপ করেননি। কারণ জনসমর্থনের প্রতি তাঁর গভীর আস্থা ছিল। আর বাংলাদেশের এখনকার পরিস্থিতিও সে রকম নয়।

খবর- এর আরো খবর