English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

বাংলাদেশ ব্যাংকের বিবৃতি

যুক্তরাষ্ট্রে হ্যাকিংয়ের মামলা রিজার্ভের অর্থ উদ্ধারের সম্ভাবনা বাড়িয়েছে

  • নিজস্ব প্রতিবেদক   
  • ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০

হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির ঘটনা দালিলিকভাবে প্রমাণিত। কারণ খোদ যুক্তরাষ্ট্রই বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির সঙ্গে জড়িত হ্যাকারদের বিরুদ্ধে মামলা করেছে। এতে আশায় বুক বাঁধছেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কর্মকর্তারা। তাঁরা বলছেন, এ মামলা রিজার্ভ চুরির অর্থ উদ্ধারের সম্ভাবনা বাড়িয়ে দিয়েছে।

গত মঙ্গলবার বাংলাদেশ ফিন্যানশিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ) থেকে এসংক্রান্ত একটি বিবৃতি দেওয়া হয়।

বিএফআইইউর পরামর্শক দেবপ্রসাদ দেবনাথ বলেন, এখন আমাদের টাকা দাবি করে যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে মামলা করা অনেক সহজ হয়ে গেল। তাদের মামলায় ফৌজদারি আইনে যদি এই অপরাধের শাস্তি দেওয়া হয়, তাহলে ওই অপরাধীদের নিয়ে যাওয়া অর্থ উদ্ধারে আমরা ফিলিপাইনকে শক্ত করে ধরতে পারব।

বিএফআইইউর বিবৃতিতে বলা হয়, এফবিআই লস অ্যাঞ্জেলেস অফিসে ও ইউএস অ্যাটার্নি অফিসে ৬ সেপ্টেম্বর উত্তর কোরিয়ার নাগরিক প্রগ্রামার পার্ক জিন হিয়কের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরিতে হ্যাকিংয়ের অভিযোগে মামলা করা হয়েছে। পার্ক জিন হিয়কের বিরুদ্ধে সনি করপোরেশনসহ বিভিন্ন প্রতিরক্ষা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানে সাইবার হামলার অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। একই সঙ্গে ইউএস ট্রেজারি ডিপার্টমেন্ট পার্ক জিন ও তাঁকে চাকরিদাতা প্রতিষ্ঠান চোশান এক্সপো অবরোধ জারি করেছে।

উত্তর কোরিয়ার সরকারের সহায়তাকারী কোনো সাইবার হামলাকারীর বিরুদ্ধে এটাই প্রথম অভিযোগ দায়ের বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল সিকিউরিটি ডিভিশনের অ্যাসিস্ট্যান্ট অ্যাটর্নি জেনারেল। অভিযোগে বলা হয়েছে, অভিযোগকারীরা সংঘবদ্ধ চক্র, যারা বিভিন্ন কম্পিউটার সিস্টেমে সাইবার হামলা করে।

এর আগে বাংলাদেশের তদন্তকারী সংস্থা সিআইডির তদন্তে রিজার্ভ চুরিতে হ্যাকিংয়ের বিষয়টি প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হয়েছে, যা গত ৫ জুলাই ফিলিপাইনের আদালতে দাখিল করেছে। হ্যাকারদের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের মামলা দায়ের ও সিআইডির তদন্ত প্রমাণ করে রিজার্ভ চুরি হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে হয়েছে। আর এসব পদক্ষেপ চুরিকৃত অর্থ উদ্ধার কার্যক্রমে গতিশীল করবে। বাংলাদেশের দাবি আরো জোরালো ভূমিকা পালন করবে।

শিল্প বাণিজ্য- এর আরো খবর