English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

ওবায়দুল কাদের বললেন

নির্বাচনকালীন সরকার অক্টোবরে টেকনোক্র্যাট নয়

  • নিজস্ব প্রতিবেদক   
  • ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০

ফাইল ছবি

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন, নির্বাচনকালীন সরকার হবে অক্টোবরের মাঝামাঝি। তাতে কোনো টেকনোক্র্যাট মন্ত্রী থাকবেন না। এই সরকারে বাইরের কেউ আসবেন না। গতকাল মঙ্গলবার সকালে সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব তথ্য জানান।

ওবায়দুল কাদের আরো জানান, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জন্য দলীয় প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করা হবে অক্টোবরে। এ পর্যন্ত দল থেকে ৬০-৭০ জনকে মনোনয়নের ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে।

নির্বাচনকালীন সরকার প্রসঙ্গে সড়ক পরিবহন মন্ত্রী বলেন, আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলাপ করেছি, টেকনোক্র্যাট কেউ আসবেন না, আকারটা ছোট হবে। তবে জাতীয় পার্টি তাদের দু-একজন আরো অন্তর্ভুক্ত করতে বলেছে, অনুরোধ করেছে। সেটাও প্রধানমন্ত্রীর এখতিয়ার। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী কতটা বিবেচনা করবেন, সেটা এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি। এগুলো আলাপ-আলোচনার পর্যায়ে আছে।

অক্টোবরের কবে নাগাদ নির্বাচনকালীন সরকার হবে জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, নাগাদটা এখন বলব না। অক্টোবরে হবে, হয়তো মাঝামাঝি। আকার কেমন ছোট হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, গতবার যে রকম সেই রকমই কাছাকাছি হবে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপি যদি নির্বাচনে না আসে তাহলে জাতীয় পার্টি আলাদা নির্বাচন করবে। বিএনপি যদি আসে তাহলে জাতীয় পার্টির সঙ্গে আসনবণ্টন, সমঝোতা হবে।

কাদের বলেন, এখন পর্যন্ত আমরা কাউকে মনোনয়ন দিইনি, তবে যাদের অবস্থা ভালো এ রকম অনেককে বলা হয়েছে। আমাদের লিডার আভাস-ইঙ্গিত দিয়েছেন, কাউকে কোনো আশ্বাস দেওয়া হয়নি। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৬০-৭০ জন প্রার্থীকে মনোনয়ন দেওয়ার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী ইঙ্গিত দিয়েছেন। অক্টোবরে প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করা হবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসার নামে বিএনপি রাজনীতি করার চেষ্টা করছে। এর আগে খালেদা জিয়ার গ্রেপ্তার নিয়ে তারা রাজনীতি করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছে। সরকারবিরোধী আন্দোলন গড়ে তুলতে বিএনপির নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্যের যে ডাক দেওয়া হয়েছে তা সফল হবে কি না তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করে কাদের বলেন, বিএনপি ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের কথা বলে। তাদের নিজের ঘরেই তো ঐক্য নেই। তারা নিজেদের অফিসেই একে অন্যকে সরকারের এজেন্ট বলে। যারা নিজেরা ঘরেই ঐক্যবদ্ধ নয় তারা কিভাবে জাতীয় ঐক্য গড়বে?

খালেদা জিয়ার মুক্তি ছাড়া জনগণ ভোট হতে দেবে না বলে বিএনপি মহাসচিব যে মন্তব্য করেছেন সে বিষয়ে কাদের বলেন, আষাঢ়ের তর্জন-গর্জনই সার। ১০ বছরে হয় নাই দুই মাসে হবে। পাগলে কি না বলে, ছাগলে কি না খায়।

যারে দেখতে নারি তার চলন বাঁকা : নীলসাগর ট্রেনে তাঁর উত্তরবঙ্গ সফর নিয়ে কিছু মিডিয়া উদ্দেশ্যমূলকভাবে সমালোচনা করেছে বলে অভিযোগ করেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, নীলসাগর ট্রেন চিলাহাটি পর্যন্ত যায়। ওই ট্রেনে যাত্রী ছিলেন ৬৫০ জন। আমরা ছিলাম ৭০ জনের মতো। পথে পথে যেসব স্টেশনে থামে, সেখানে যাত্রী নেমে গেছে, আবার উঠেছে। যখনই রাস্তায় রেলস্টেশনে নেমেছি, তখন যাত্রীরাও অনেকে গিয়ে শামিল হয়েছে। এই যে দুর্ভোগ বলেন, কয়জন যাত্রীর দুর্ভোগ হয়েছে? অথচ পল্টনে তিনটি রাস্তা বন্ধ করে যে বিএনপির সমাবেশ হয়েছে তাতে কয় লাখ লোকের দুর্ভোগ হয়েছে? সেখানে যে দুর্ভোগ হয়েছে তা তো বলেননি। আওয়ামী লীগকে দেখতে পারেন না, তাই যারে দেখতে নারি তার চলন বাঁকা।

নির্বাচনী নৌযাত্রা কাল : ওবায়দুল কাদের জানান, নির্বাচনী সফরে তিনি আগামীকাল ১৩ সেপ্টেম্বর লঞ্চযোগে পটুয়াখালী ও বরগুনা যাবেন। পরে ২২ ও ২৩ সেপ্টেম্বর সড়কপথে চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার যাবেন তিনি।

প্রথম পাতা- এর আরো খবর