English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

বসরায় বিক্ষোভ : সান্ধ্য আইন জারি

পুড়ল ইরানি কনসুলেটও

  • কালের কণ্ঠ ডেস্ক   
  • ৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০

ইরাকের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর বসরায় মৌলিক সেবার ঘাটতি ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে চলা বিক্ষোভের একপর্যায়ে ইরানি কনসুলেট ভবনও আগুন ধরিয়ে দেয় বিক্ষোভকারীরা। শিয়া মুসলিম অধ্যুষিত ইরাকের দ্বিতীয় বৃহত্তম এ শহরটিতে বিক্ষোভকারীরা ইরানি পতাকায় আগুন ধরিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি রাজনীতিতে তেহরানের প্রভাব বিস্তারের প্রতিবাদে স্লোগানও দেয়। এই বিক্ষোভে ৯ জন নিহত হয়।

পাঁচ দিন ধরে চলা এ বিক্ষোভ থামাতে শুক্রবার রাত ৯টা থেকে কর্তৃপক্ষ সান্ধ্য আইন জারি করে। গত সপ্তাহের সোমবার থেকে শুরু হওয়া এ বিক্ষোভে এখন পর্যন্ত অন্তত ১০ জন নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম।

সাদ্দাম হোসেনের পতনের পর থেকে ইরাকের শিয়াদের সঙ্গে তেহরানের ঘনিষ্ঠতা বৃদ্ধি পেয়েছে। বিক্ষোভকারীরা ইরানের কনসুলেট ভবনকে বাগদাদের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অন্যান্য সরকারি ভবনের মতোই মনে করে আগুন ধরিয়ে দেয় বলে পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন। কনসুলেট ভবন জ্বালিয়ে দেওয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বাহরাম কাসেমি। আগ্রাসী এ হামলায় বিপুল ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি। ভবনে আগুন দেওয়ার আগেই কনসুলেটের কর্মীরা সব নিরাপদ আশ্রয়ে সরে যেতে সক্ষম হয়েছিলেন বলে ধারণা ইরানি গণমাধ্যমগুলোর।

বসরার দক্ষিণাঞ্চলের বাসিন্দারা ভেঙে পড়া অবকাঠামো, তীব্র গরমের মধ্যে বিদ্যুৎ না থাকা ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে কয়েক সপ্তাহ ধরে প্রতিবাদ বিক্ষোভ করে আসছে। শহরটির ২০ লাখেরও বেশি বাসিন্দা বলছে, সাপ্লাইয়ের পানিতে লবণ চুইয়ে পড়ায় তা পানের অনুপযুক্ত হয়ে পড়েছে; যে কারণে গ্রীষ্মের গরমের মধ্যে তারা অসুস্থ হয়ে পড়ছে। পানি পানে অন্তত ৩০ হাজার লোক অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর থেকেই বাসিন্দারা সহিংস বিক্ষোভ শুরু করে। গত বৃহস্পতিবার রাতে বিক্ষোভকারীরা প্রাদেশিক সরকারের প্রধান কার্যালয়ে ভাঙচুরের পর আগুন ধরিয়ে দেয়। সূত্র : বিবিসি।

দেশে দেশে- এর আরো খবর