English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

রূপচর্চা

খুশকি দূর করবে...

চুলে খুশকি হলে ঝামেলার শেষ নেই। খুশকি থেকে মুক্তি পাওয়ার ঘরোয়া সমাধান জানাচ্ছেন রূপ বিশেষজ্ঞ নাহিদ আফরোজ তানি, কথা বলেছেন জেনিফার ডি প্যারিস

  • ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০

আদা

আদায় আছে প্রাকৃতিক অ্যান্টিসেপটিক, যা চুলের গোড়ায় হওয়া ছত্রাক নির্মূল করে। আদা চুলকে করে শক্ত ও ঝলমলে। খুশকি দূর করতে আদা ব্যবহার করা যায় নানাভাবে।

নারকেল তেলের সঙ্গে আদার গুঁড়া মিশিয়ে ভালো করে গরম করে নিন। মিশ্রণটি ছেঁকে চুলের গোড়ায় লাগিয়ে রাখুন ১ ঘণ্টা, এরপর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। মিশ্রণটি চুলে ব্যবহার করুন সপ্তাহে অন্তত দুবার।

আদা বাটার সঙ্গে টক দই মিশিয়ে তা চুল ও মাথার ত্বকে ব্যবহার করুন, দুই ঘণ্টা পর শ্যাম্পু করে ফেলুন।

ঝামেলা এড়াতে চাইলে শুধু আদার রসটুকুও ব্যবহার করতে পারেন। চুলের গোড়ায় আদার রস লাগিয়ে কিছুক্ষণ পর ধুয়ে ফেলুন, মাথার চুলকানি যেমন কমবে, দূর হবে খুশকি।

কমলা

ত্বকের যত্নের পাশাপাশি কমলা খুশকি দূর করার কাজেও দারুণ কার্যকর। কমলার খোসার ভিটামিন সি আর সাইট্রিক এসিড চুলের গোড়ায় বাড়তি তেল জমতে দেয় না, ফলে খুশকি হওয়ার সুযোগও কমে যায়।

কমলার খোসার সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়ে মিহি করে বেটে নিন, মিশ্রণটি চুলের গোড়ায় লাগিয়ে রাখুন ৩০ মিনিট। এরপর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে সপ্তাহে দুই-তিনবার ব্যবহার করুন কমলার প্যাক, ফল দেখুন নিজেই।

তুলসী

ত্বক ও চুলের যত্নে তুলসীর ব্যবহার নতুন নয়। খুশকি নিরাময়ে তুলসীর ব্যবহার হয় অনেকভাবে।

নারকেল তেলের মধ্যে কয়েকটি তুলসী পাতা দিয়ে ভালো করে ফুটিয়ে নিন। মিশ্রণটি চুলের গোড়ায় লাগিয়ে রাখুন সারা রাত। এরপর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। বাজারে তুলসীর তেলও পাওয়া যায়, চাইলে সেটাও ব্যবহার করতে পারেন।

খুশকি থেকে মুক্তিতে আরেকটি বহুল প্রচলিত উপায় হলোতুলসী পাতার সঙ্গে জবা ফুলের পাপড়ি ও মেহেদি পাতা বেটে মিশ্রণটি চুলে লাগান। এটি মাথার ত্বকের চুলকানি দূর করবে এবং রক্ত সঞ্চালন বাড়াবে, ফলে খুশকি দূর হবে দ্রুত।

A টু Z- এর আরো খবর