English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

মাদক ইভটিজিং ও বাল্যবিয়েকে ‘না’

নোয়াখালীতে এক হাজার শিক্ষার্থীর শপথ

  • সামসুল হাসান মীরন, নোয়াখালী   
  • ৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০

... এগিয়ে চলো মানবতার সেবায় স্লোগানে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন লাল সবুজ উন্নয়ন সংঘ ব্যতিক্রমধর্মী এই কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। সংগঠনের দস্যরা তাঁদের টিফিনের টাকা বাঁচিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে ওই কর্মসূচির আয়োজন করে আসছে ...

নোয়াখালীতে মাদক, ইভটিজিং ও বাল্যবিয়েকে না বলার শপথ নিয়েছে স্কুলশিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীরা মাদক, ইভটিজিং ও বাল্যবিয়েকে লালকার্ড এবং সত্যবাদিতা, মানবতা ও দেশপ্রেমকে সবুজকার্ড প্রদর্শন করে।

নোয়াখালী জেলা শহরের অরুণ চন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয়ের এক হাজার শিক্ষার্থীকে সম্প্রতি শপথবাক্য পাঠ করান সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আরিফুল ইসলাম সরদার।

এ সময় শিক্ষার্থীরা নিয়মিত পড়াশোনা করে নিজেকে যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে, কখনো মিথ্যা কথা না বলতে, ছেলেরা ২১ ও মেয়েরা ১৮ বছর বয়সের পূর্বে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ না হতে শপথ পাঠ করে।

শিক্ষার্থীদের সাথে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিজেও মাদক, ইভটিজিং ও বাল্যবিয়েকে লালকার্ড এবং সত্যবাদিতা, মানবতা ও দেশপ্রেমকে সবুজকার্ড প্রদর্শন করেন।

এগিয়ে চলো মানবতার সেবায় এই স্লোগানে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন লাল সবুজ উন্নয়ন সংঘ ব্যতিক্রমধর্মী এই শপথের আয়োজন করে। সংঠনের সদস্যরা তাঁদের টিফিনের টাকা বাঁচিয়ে সারাদেশে বিভিন্ন স্থানে এই ধরনের আয়োজন করে আসছে। সংগঠনের সভাপতি কাওসার আলম সোহেলের সঞ্চালনায় ও বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ভূপাল চন্দ্র দেবনাথের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের পরিদর্শক মো. আনোয়ারুল হক।

লাল সবুজ উন্নয়ন সংঘের সভাপতি কাউসার আলম সোহেল জানান, তরুণ ও উদীয়মান শিক্ষার্থীদেরকে সচেতন করার জন্য এ বছরের মার্চের ৮ তারিখ থেকে তেঁতুলিয়া থেকে টেকনাফ পর্যন্ত নিজের টিফিনের টাকা বাঁচিয়ে দেশের ৬৪টি জেলায় ভ্রাম্যমাণ সফরে বের হয়েছেন তাঁরা। ৫৮তম জেলা হিসেবে নোয়াখালীতে এই কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়েছে।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আরিফুল ইসলাম সরদার বলেন, বর্তমান প্রেক্ষাপটে মাদকের যে ভয়াবহতা সেটার ওপরে ভিত্তি করে দেশে একটা অভিযান চলছে। মাদক, ইভটিজিং ও বাল্যবিয়েকে শিক্ষার্থীদের লালকার্ড প্রদর্শন এবং সত্যবাদিতা, মানবতা ও দেশপ্রেমকে সবুজকার্ড প্রদর্শনের এই আইডিয়া আমার কাছে অসাধারণ মনে হয়েছে।

তিনি মনে করেন, মাদক, ইভটিজিং ও বাল্যবিয়েসহ সকল খারাপ কাজকে না বলার এবং সত্যবাদিতা, মানবতা ও দেশপ্রেমকে হ্যাঁ বলার এই শপথ শিক্ষার্থীদের মনের মধ্যে গেঁথে গেছে। তারা সব সময় তাদের এই শপথ মেনে চললে তাদের ব্যক্তিগত জীবন, পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রের অনেক মঙ্গল হবে।

শিক্ষার্থীরা সব সময় তাদের এই শপথ রক্ষা করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

দ্বিতীয় রাজধানী- এর আরো খবর