English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

জিরুদের গোলে ফ্রান্সের জয়

  • কালের কণ্ঠ অনলাইন   
  • ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৩:১৩

গোল করে জিরুদের উল্লাস। ছবি : এএফপি

নেদারল্যান্ডের বিপক্ষে উয়েফা নেশনসকাপে গতকাল ঘরের মাঠে ২-১ গোলের জয় তুলে নিয়েছে বিশ্বকাপজয়ী ফ্রান্স। আন্তর্জাতিক ম্যাচে গোলখরা কাটিয়ে এই ম্যাচে জয়সূচক গোলটি করেছেন অলিভার জিরুদ। জুলাইয়ে বিশ্বকাপ জয়ের পরে এটাই প্যারিসের ঘরের মাঠ এস্তাদে ডি ফ্রান্সে দিদিয়ের দেশ্যমের দলের প্রথম ম্যাচ।

রবিবার রাতে ম্যাচের ৫ম মিনিটে বেঞ্জামিন মেন্ডির ক্রসে জিরুদ গোল করে দলের জয় নিশ্চিত করেন। ফ্রান্সের জার্সি গায়ে সর্বশেষ ১১টি ম্যাচে এটাই জিরুদের প্রথম গোল। রাশিয়া বিশ্বকাপ জয়ের পথে চেলসির এই স্ট্রাইকারের কাছ থেকে কোন গোল পায়নি ফ্রান্স।

এর আগে অবশ্য ১৪ মিনিটে কিলিয়ান এমবাপের গোলে ফ্রান্স এগিয়ে গিয়েছিল। দ্বিতীয়ার্ধ শুরু সাথে সাথে রায়ান বাবেল গোল করে নেদারল্যান্ডের পক্ষে সমতা ফেরান। কিন্তু শেষ পর্যন্ত জিরুদের গোলে স্বস্তি নিয়েই ঘরে ফিরেছে স্বাগতিক দর্শকরা। একইসাথে নেশন্স লিগে প্রথম জয়ের স্বাদ পেয়েছে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

এর আগে জার্মানির বিপক্ষে প্রথম ম্যাচটি গোলশুন্য ড্র হয়েছিল। প্রায় ৮০ হাজার স্বাগতিক দর্শকের সামনে অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে যেন বিশ্বকাপ জয়ের আনন্দই প্রতিফলিত হচ্ছিল। ফ্রেঞ্চ দল ও তাদের সমর্থকরা মূলত বিশ্বকাপে জয়ের সাথে সাথে তা উদযাপনের আনন্দটা উপভোগ করতে পারেনি। কাল যেন সেই আনন্দটাই তারা দেরিতে হলেও উদযাপন করে নিল।

বৃহস্পতিবার জার্মানির বিপক্ষে মিউনিখে গোলশুন্য ড্র হওয়া ম্যাচটির মূল একাদশ নিয়েই মাঠে নেমেছিল ফেঞ্চরা। এর অর্থ হচ্ছে বিশ্বকাপের ফাইনালের সাথে পার্থক্য ছিল শুধুমাত্র গোল ব্যবধানের। আর গোলবারে ইনজুরি আক্রান্ত হুগো লোরিসের স্থানে ছিলেন আলফোনসে আরেয়োলা।

দুই দল মাঠে নামার আগে পুরো পিচ ঢেকে রেখেছিল একটি ব্যানার, যেখানে লেখা ছিল বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন। দিদিয়ের দেশ্যমের দলকে ম্যাচ শুরুর আগে এভাবেই দেশের জাতীয় স্টেডিয়ামে স্বাগত জানানো হয়।

ম্যাচ শুরুর ৫০ সেকেন্ডের মধ্যেই ডাচ গোলকিপার জাসপার সিলিসেন এমবাপের একটি প্রচেষ্টা রুখে দেন। এই ম্যাচে আরো একবার প্রমানিত হয়েছে ভবিষ্যতের ব্যালন ডিঅর বিজয়ী হিসেবে কেন তাকে ইতোমধ্যেই বিবেচনা করা হচ্ছে। ১৪ মিনিটে ব্লেইস মাতৌদির ক্রসে ১৯ বছর বয়সী এই তরুন স্ট্রাইকারের গোলেই এগিয়ে যায় স্বাগতিকরা। চলতি বছর এটি ছিল এমবাপের অষ্টম আন্তর্জাতিক গোল। রোনাল্ড কোম্যানের অধীনে নতুনভাবে পুনর্গঠিত হবার চেষ্টা করা ডাচ দলটির বিপক্ষে ফ্রান্স ছিল একেবারে অপ্রতিরোধ্য। ২০১৬ ইউরো ও চলতি বছর বিশ্বকাপের মূল পর্বে খেলতে ব্যর্থ হওয়া নেদারল্যান্ড আবারো ঘুড়ে দাঁড়ানোর মিশনে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

৬৬ মিনিটে প্রথম সহজএকটি সুযোগ নষ্ট করে সফরকারীরা। ডি বক্সের মধ্যে জিওর্জিনিও উইনালডাম নিজেকে একা পেয়েও বল বাইরে পাঠিয়ে দেন। কিন্তু মিনিটখানেক পরে কেনি টেটের লো ক্রসে বাবেল আর ভুল করেননি। ৭৫ মিনিটে জিরুদের গোলে ফ্রান্সের জয় নিশ্চিত হয়। এটি ছিল জাতীয় দলের জার্সি গায়ে জিরুদের ৩২তম গোল, জিনেদিন জিদানের থেকে যা একটি গোল বেশি।

জার্মানীর সাথে ড্র ও নেদারল্যান্ডকে পরাজিত করায় নেশন্স লিগের গ্রুপ ওয়ানে ফ্রান্স এখন বেশ ভালভাবেই শীর্ষে অবস্থান করছে। প্রতিটি গ্রুপের শীর্ষ দল নিয়ে আগামী জুনে চার দলের ফাইনাল টুর্ণামেন্ট অনুষ্ঠিত হবে।

খেলাধুলা- এর আরো খবর