English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

রোহিঙ্গা সঙ্কটের এক বছর

বিশ্বনেতাদের ব্যর্থতায় মিয়ানমারের সেনারা ধরাছোঁয়ার বাইরে : অ্যামনেস্টি

  • কালের কণ্ঠ অনলাইন   
  • ২৫ আগস্ট, ২০১৮ ০৯:১৯

ফাইল ফটো

সাম্প্রতিক রোহিঙ্গা শরণার্থী সঙ্কটের একবছর হয়ে গেছে। তবুও বিচারের মুখোমুখি করা যায়নি এ ঘটনায় দায়ী মিয়ানমারের সেনাসদস্যদের। এ ব্যর্থতার কারণ হিসেবে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বিশ্বনেতাদের ব্যর্থতাকেই দায়ী করেছে।

শুক্রবার অ্যামনেস্টির এক বিবৃতিতে বলা হয়, রাখাইনে রোহিঙ্গা গ্রামগুলো জ্বালিয়ে দেওয়া ছাড়াও সেখানে স্থলমাইনও ব্যবহার করেছে সেনাবাহিনী। এছাড়া হত্যা, ধর্ষণ, নির্যাতন, জোরপূর্বক অনাহারে রাখা এবং দেশত্যাগে বাধ্য করার মতো মানবতাবিরোধী অপরাধ এবং মানবাধিকার লঙ্ঘনের মতো ঘটনাও সেখানে ঘটানো হয়েছে।

রোহিঙ্গা সঙ্কটের বর্ষপূর্তিকে লজ্জাজনক বলছে অ্যামনেস্টি।

অ্যামনেস্টির ক্রাইসিস রেসপন্স ডিরেক্টর তিরানা হাসান বিবৃতিতে বলেন, এই বর্ষপূর্তি লজ্জাজনক একটি মাইলফলক হয়ে থাকবে। মানবতাবিরোধী সেইসব অপরাধীদের জবাবদিহিতার আওতায় আনতে ব্যর্থতার মধ্যে দিয়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় বিপদজনক যে বার্তা দিয়েছে, তা হল মিয়ারমারের সেনাবাহিনী শুধু দায়মুক্তিই ভোগ করবে না, তারা আবারও এ ধরনের নৃশংসতা চালাতে পারবে। আমাদের অবশ্যই আর এমন ঘটনা ঘটতে দেওয়া উচিত হবে না।

তিনি আরও বলেন, একবছর হল লাখ লাখ রোহিঙ্গা পরিকল্পিত হামলার মুখে পালিয়ে এখনো বাংলাদেশের শরণার্থী শিবিরগুলোতে অমানবিকভাবে বসবাস করছে। পাশাপাশি তাদের নির্যাতনকারী মিয়ানমার নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা ধরাছোঁয়ার বাইরে থেকে যাওয়ায় রোহিঙ্গাদের নিরাপদ, মর্যাদাপূর্ণ স্বেচ্ছায় ঘরে ফেরার বিষয়টি উপহাসের বিষয়ে পরিণত হয়েছে।

গত বছরের এ সময় কয়েকটি নিরাপত্তা চৌকিতে সশস্ত্র সংগঠন আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মির (আরসা) কয়েকদফা হামলার প্রেক্ষাপটে রাখাইনে রোহিঙ্গা নিধনে নামে দেশটির সেনাবাহিনী। এ অভিযানের মুখে ২৫ আগস্ট থেকে বাংলাদেশ অভিমুখে রোহিঙ্গাদের ঢল শুরু হয়। একে জাতিগত নির্মূল অভিযান হিসেবে বর্ণনা করে আসছে জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থা। রাখাইনে মিয়ানমার বাহিনী কিভাবে জাতিগত নির্মূল অভিযান চালিয়েছে তারও ব্যবপাক তথ্যপ্রমাণ পেয়েছে অ্যামনেস্টি।

মিয়ানমার সরকার একে জাতিগত নির্মূল অভিযান বলতে নারাজ। তারা বলে আসছে, ওই অভিযান চালানো হয়েছে সন্ত্রাসীদের বিরদ্ধে।

রোহিঙ্গা নিধন- এর আরো খবর