English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান হিসেবে শামসুল হক খান স্কুল অ্যান্ড কলেজ নির্বাচিত

ড. মাহবুবুর রহমান মোল্লা শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান প্রধান

  • কালের কণ্ঠ অনলাইন   
  • ২৭ আগস্ট, ২০১৭ ১৯:৫৩

ঢাকা মহানগরীর বৃহত্তর ডেমরার (ডেমরা, যাত্রাবাড়ী, কদমতলী) শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান নির্বাচিত হয়েছে শামসুল হক খান স্কুল অ্যান্ড কলেজ। একই সঙ্গে এই কলেজের অধ্যক্ষ ড. মাহবুবুর রহমান মোল্লা শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান প্রধান নির্বাচিত হয়েছে। এই প্রতিষ্ঠানের স্কাউট গ্রুপও শ্রেষ্ঠত্বের গৌরব অর্জন করেছে। জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ-২০১৭ উপলক্ষে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা (মাউশি) অধিদপ্তর প্রতিটি উপজেলার শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান এবং প্রতিষ্ঠান প্রধান নির্বাচন করে। গত বৃহস্পতিবার এই তালিকা প্রকাশ করা হয় এবং আজ রবিবার এ সংক্রান্ত চিঠি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে পৌঁছায়।

শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান এবং প্রতিষ্ঠান প্রধানের স্বীকৃতি পাওয়ায় অধ্যক্ষ ড. মাহবুবুর রহমান মোল্লা কালের কণ্ঠকে বলেন, সরকার ঘোষিত এই সম্মাননায় এই প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে জড়িত আমরা সকলে আনন্দিত, কৃতজ্ঞ ও গৌরবান্বিত বোধ করছি। প্রতিষ্ঠানের দীর্ঘ যাত্রায় এর আগেও সফলতা এসেছে। এই শ্রেষ্ঠত্ব আমাদের প্রাপ্য ছিল। ২০১৫ সালের এসএসসি পরীক্ষায় যখন সর্বশেষ বারের মতো সেরা প্রতিষ্ঠানের তালিকা করা হয় তখনো আমরা প্রথম স্থান হবার গৌরব অর্জন করি। পিইসি ও জেএসসি পরীক্ষায়ও আমাদের সাফল্য ঈর্ষনীয়।

জানা যায়, ২০১৫ সালে এ প্রতিষ্ঠানটি এসএসসিতে ঢাকা বোর্ডে ১ম স্থান অধিকার করে দেশসেরা হবার গৌরব অর্জন করে। ২০১২ সালেও ২য় সেরা হয়েছিল। এরই ফলশ্রুতিতে শিক্ষার্থীদের এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে অভিনন্দিত করতে একাধিকবার এসেছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এবং সড়ক পরিবহন ও যোগাযোগ মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি। ২০০৫ থেকে অদ্যাবধি প্রতিষ্ঠানের কলেজ শাখা সেরা দশের মধ্যে অবস্থান করে আসছে। ২০১৬ ও ২০১৭-তেও এইচএসসিতে সামসুল হক খান স্কুল এন্ড কলেজ ছিল দেশের সকল কলেজ থেকে এগিয়ে। পিইসি এবং জেএসসি পর্যায়েও সামসুল হক খান স্কুল এন্ড কলেজ বারবার সাফল্য অর্জন করে আসছে। প্রতিবছরই এই দুটি পর্যায়ে বৃত্তি প্রাপ্তি ঘটে ঈর্ষনীয় পরিমাণে।

সহশিক্ষা কার্যক্রমে এই প্রতিষ্ঠানের যেসব শিক্ষার্থী উল্লেখযোগ্য নৈপুণ্য প্রদর্শন করেছে। জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহে এই প্রতিষ্ঠান থেকে লোক সঙ্গীতে জোনায়েদ মাসুদ ও পুষ্পিতা মির্জা, লোকনৃত্যে অর্পিতা অধিকারী ও সাবিহা বিনতে মাহবুব, তাত্ক্ষণিক অভিনয়ে মো. নাফিস আল মাহমুদ বিজয়ী হন।

জাতীয়- এর আরো খবর