English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

ব্যক্তি কামরানকে 'লাল কার্ড', আওয়ামী লীগকে নয়

  • কালের কণ্ঠ অনলাইন   
  • ৩১ জুলাই, ২০১৮ ১২:৫১

সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের শীর্ষ এই নেতার সঙ্গে জামায়াত ইসলামীর সঙ্গে ব্যবসা বাণিজ্যসহ ঘনিষ্ঠ প্রীতির কথা দেশবাসী না জানলেও সিলেটের মানুষ খুব ভালোভাবেই জানে। সিলেটের জনগণ নৌকাকে প্রত্যাখান করেনি। নৌকা ও বঙ্গবন্ধুর কন্যার প্রতি নগরবাসীর আস্থা এবং বিশ্বাস অটুট আছে। কিন্তু জামায়াতপ্রীতি আর কর্মী সমর্থকদের উপেক্ষা করা এক সময়ের খুবই জনপ্রিয় সেই নেতার প্রতি মানুষের সুবিশাল ভালোবাসা কমতে কমতে এখন তলানীতে ঠেকেছে।

তৃণমূলের নেতাকর্মীরা একতরফা শুধু দিয়েই যাবে আর ওনারা শুধু নিয়েই যাবে, এটা তো যুগের পর যুগ চলতে পারে না। কারণ দিন বদলেছে। মানুষ অনেক সচেতন। এই ধরনের জনবিচ্ছিন্ন হওয়া নেতারা নিজের প্রয়োজনে দলের নেতাকর্মীদের বাপ-দাদার তালুক মনে করলে ভুল হবে। আর সেই ভুলের নজির দেখেছেন ভোটের মাঠে। ভোটের দিন এত কিছুর পরও ওনার পরাজয় ঠেকাতে পারেননি তিনি। আর যদি দলের প্রার্থীর জন্য আন্তরিকভাবে তৃণমূলের নেতাকর্মীরা মাঠে থাকতো আর ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে নগরবাসীর জলাবদ্ধতা দূরীকরণসহ চোখে পড়ার মতো কিছু উন্নয়ন করতেন, তাহলে ভোটের জন্য কান্না-আকুতি আর পরাজয় বরণ করতে হতো না। ভোটাররা দলে দলে কেন্দ্রে গিয়ে বিপুল ভোটে পাশ করাতেন ওনাকে।

সিলেটে ১৫ দিন থেকে সাধারণ নেতাকর্মীদের সঙ্গে মিশে নেপথ্যের অনেক কিছুই টের পেলাম।

লেখক: হায়দার আলী, সাংবাদিক

(এই বিভাগে প্রকাশিত লেখা ও মন্তব্যের দায় একান্তই সংশ্লিষ্ট লেখক বা মন্তব্যকারীর, কালের কণ্ঠ কর্তৃপক্ষ এজন্য কোনোভাবেই দায়ী নয়)

নাগরিক মন্তব্য- এর আরো খবর