English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

মেহেদী হত্যাকাণ্ড

দক্ষিণখানের আট কিশোর গ্রেপ্তার

  • নিজস্ব প্রতিবেদক    
  • ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০২:২৮

রাজধানীর দক্ষিণখান এলাকায় কিশোর মেহেদী হাসান হত্যার ঘটনায় আটজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল রবিবার ও গত শনিবার ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিবি) উত্তরের একটি দল সিলেট ও দিনাজপুরে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো মোহাম্মদ সাইফ, মনির, আরাফাত, সাইফুল, মেহেরাব, আপেল, সিফাত ও সোহেল। এদের মধ্যে তিনজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। দলনেতা সাইফের কাছে থেকে একটি সুইচ গিয়ার চাকু উদ্ধার করা হয়েছে।

এ নিয়ে গতকাল ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারে প্রেস ব্রিফিংয়ের আয়োজন করা হয়। সেখানে ডিএমপি উপকমিশনার (মিডিয়া) মাসুদুর রহমান জানান, সিনিয়র-জুনিয়র দ্বন্দ্বের জের ধরেই মেহেদী হাসানকে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় জড়িত থাকায় আট কিশোরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তারা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মেহেদী হত্যায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে।

মাসুদুর রহমান আরো জানান, দক্ষিণখানের যে এলাকায় মেহেদীকে হত্যা করা হয় সেখানে দুটি টিনএজ গ্রুপ দীর্ঘদিন ধরে সক্রিয় ছিল। এর মধ্যে একটি গ্রুপের নেতৃত্ব দিত শান্ত অন্যটির নেতা আরাফাত। নিহত মেহেদী শান্ত গ্রুপে ছিল। ঘটনার কিছুদিন আগে আরাফাত গ্রুপের সদস্য মেহেদীকে তুই বলে সম্বোধন করে। এই তুই বলার জেরে শান্ত গ্রুপের ছেলেরা মেহেদীকে প্রথমে মারধর করে। এরপর ফের তার ওপর হামলা চালায় ও ছুরি মেরে রাস্তায় ফেলে পালিয়ে যায়। পরে হাসপাতালে মেহেদীর মৃত্যু হয়।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উপকমিশনার (উত্তর) মশিউর রহমান বলেন, হত্যার আগে সানি ও সোহেল মেহেদীকে জড়িয়ে ধরে। এরপর সাইফ চাকু দিয়ে মেহেদীর বাম কানের নিচে স্টেপ করে এবং অন্যরা লাঠি দিয়ে আঘাত করে। আহত অবস্থায় মেহেদীকে প্রথমে কেসি হাসপাতাল ও পরে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিত্সাধীন তাঁর মৃত্যু হয়।

ঢাকা- এর আরো খবর