English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

ঢাকা-২ আসনের রাজনীতি

'শাহীন ভাইয়ের জন্যে নৌকা প্রতীকে নমিনেশন চাইবো'

  • নিজস্ব প্রতিবেদক   
  • ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৪:২৯

খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলামের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করলেন কামরাঙ্গীরচরের আওয়ামী লীগ নেতা বাবু দেওয়ান। বললেন, বর্তমান খাদ্যমন্ত্রীর জন্যে ১০ বছর কাজ করেছি। প্রতিদানে তিনি আমাকে ৫৬ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ১০ নম্বর উপদেষ্টা বানানোর প্রস্তাব করেছিলেন। কামরাঙ্গীরচরের চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের হামলায় যখন আমি আহত, তখন তিনি বলেছিলেন বিচার করবেন। কিন্তু বিচার করেননি। বাবু দেওয়ান আরো বলেন, পরবর্তিতে আমি যখন আমার যোগ্যতায় মহানগর থেকে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ১ম সাংগঠনিক সম্পাদক হই, সেদিন রাতেও আবারো সেই চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা আমার বাড়িতে হামলা চালায়। ভাঙচুর ও লুটপাট করে। সাথে মোটারসাইকেল আগুনে জ্বালিয়ে দেয়। সবকিছুর প্রমাণ সিসি টিভিতে রয়ে গেছে। খাদ্যমন্ত্রী আমার বাসায় এসে শান্তনা দিয়ে বিচার পাওয়ার আশ্বাস দেন। দেড় মাস অতিবাহিত হলেও তিনি বিচার করেন নাই। বরং আমি থানায় মামলা করলেও আসামিরা সব প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে। অথচ কাউকেই গ্রেপ্তার করা হয় না। তাছাড়া মাননীয় মন্ত্রী মহানগরের দেওয়া আমাদের এই কমিটিও মেনে নেন নাই। আমি কি বিএনপি-জামায়াত করেছিলাম?- এমন প্রশ্ন তুলে তিনি আরো বলেন, গত দুইটা বছর হাজার হাজার বার শুনতে হয়েছে আমি শাহিন চেয়ারম্যানের লোক। অথচ তার হয়ে রাজনীতি করিনি। তাই অবশেষে আমি এবং ৫৬নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সকল নেতৃবৃন্দ সিদ্ধান্ত নিয়েছি, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমরা শাহিন ভাইয়ের জন্য ঢাকা-২ আসনে নৌকা প্রতিকে নমিনেশন চাইবো এবং শাহিন ভাই যদি নমিনেশন পান, সেক্ষেত্রে সবাই মিলে বিগত নির্বাচনের চাইতেও বেশি ভোটে শাহিন ভাইকে ঢাকা-২ আসন থেকে নির্বাচিত করবো ইনশাআল্লাহ। খুব শিগগিরই কামরাঙ্গীরচর থানা আওয়ামী লীগ ও ৫৫ এবং ৫৭নং ওয়ার্ডের নেতৃবৃন্দও প্রকাশ্যে বর্তমান কেরানীগঞ্জ উপেজেলা চেয়রম্যান শাহিন আহমেদকে আগামী জাতীয় নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের সংসদ সদস্য প্রার্থী হিসেবে সমর্থন দেবেন বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি। বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, কেরানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহীন আহমেদ আগামী নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে প্রার্থী হতে চান। এ লক্ষ্যে দীর্ঘদিন ধরে তিনি এলাকায় গণসংযোগ করছেন। ইতিমধ্যে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের সবুজ সংকেতও পেয়েছেন বলে এলাকায় প্রচার রয়েছে। ইতিমধ্যে দুই বারের দেশসেরা এই উপজেলা চেয়ারম্যানকে সবাই সমর্থন দিচ্ছেন। দলের তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মী এবং সাধারণ ভোটারদের মন কাড়তেও সক্ষম হয়েছেন ।

রাজনীতি- এর আরো খবর