English

অনলাইন

আজকের পত্রিকা

ফিচার

সম্পাদকীয়

সরকার ও বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন

  • নিজস্ব প্রতিবেদক   
  • ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৯:৩৭

উনারা আইন জানেন না বলে বিএনপি চেয়ারপারসন সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের সম্পর্কে গত ৯ সেপ্টেম্বর আইনমন্ত্রী আনিসুল হক এমপির মন্তব্যকে কেন্দ্র করে সরকার সমর্থক আইনজীবীরা ও বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

আজ মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি ভবন মিলনায়তনে এ সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা আইনমন্ত্রীর মন্তব্য প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন। অপরদিকে সরকার সমর্থক আইনজীবী নেতারা বলেছেন, মাঠ গরম করার জন্যই আইনমন্ত্রীর বক্তব্য পুঁজি করতে ঝড় তোলার চেষ্টা করছে বিএনপি আইনজীবীরা।

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক এমপি গত ৯ সেপ্টেম্বর সুপ্রিম কোর্টে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। এই সাক্ষাৎ শেষে বেরিয়ে যাবার সময় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন আইনমন্ত্রী। খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা বলছেন যে আইন মন্ত্রণালয় বেআইনিভাবে কারাগারের ভেতর আদালত স্থাপন করে গেজেট জারি করেছে। এ প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী বলেন, এটা যদি বলে থাকে তবে বলবো, উনারা আইন জানেন না।

আইনমন্ত্রীর এই বক্তব্যের পর আজ সকালে সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতি এক সংবাদ সম্মেলন করে। সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন ও সম্পাদক ব্যারিস্টার এ এম মাহবুবউদ্দিন খোকনের নেতৃত্বে এ সংবাদ সম্মেলন করা হয়। এই দুজনই বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা।

এই সংবাদ সম্মেলনে সমিতির সহ-সভাপতি গোলাম মোস্তফা ও ড. গোলাম রহমান ভূঁইয়া, কোষাধ্যক্ষ নাসরিন আক্তার, সহ-সম্পাদক কাজী মো. জয়নুল আবেদীন, সদস্য মাহফুজ বিন ইউসুফ, ব্যারিস্টার শফিউল আলম মাহবুব, অ্যাডভোকেট আহসান উল্লাহ, ব্যারিস্টার মেহেদী হাসান উপস্থিত ছিলেন।

অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন বলেন, জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলার কার্যক্রম পরিচালনার জন্য রাতের অন্ধকারে বেআইনিভাবে গেজেটের মাধ্যমে কারাগার কক্ষে আদালত স্থাপন করেছে সরকার। যা সংবিধানের ৩৫(৩) নম্বর অনুচ্ছেদ এবং ফৌজদারি কার্যবিধির ৩৫২ ধারার পরিপন্থি।

তিনি বলেন, আমরা প্রধান বিচারপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করে তাঁর কাছে একটি আবেদন করেছি। সেদিন আমাদের সঙ্গে সিনিয়র বেশ কয়েকজন নামকরা আইনজীবী উপস্থিত ছিলেন। তারা প্রত্যেকেই এই বারের প্রতিষ্ঠিত এবং বাংলাদেশের বরেন্য আইনজীবী। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয়, আইনমন্ত্রীর উক্তি অত্যন্ত দুঃখজনক এবং বেদনাদায়ক। এ বক্তব্য আইনজীবীদের জন্য অপমানজনক। তাই এ ধরনের অসৌজন্যমূলক বক্তব্য প্রত্যাহারের জন্য আহ্বান জানাচ্ছি।

সরকার সমর্থক আইনজীবীদের সংবাদ সম্মেলন

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির ব্যানারে বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের সংবাদ সম্মেলনের পর পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করেন সরকার সমর্থক আইনজীবীরা। আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য, বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের কেন্দ্রীয় আহ্বায়ক ও বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন এ সংবাদ সম্মেলন করেন।

এ সময় আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সম্পাদক অ্যাডভোকেট শ ম রেজাউল করিম, সমিতির বর্তমান সহ-সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুর রাজ্জাক, সাবেক সহ-সম্পাদক ব্যারিস্টার শফিকুল ইসলাম ও এ কে এম রবিউল হাসান সুমন উপস্থিত ছিলেন।

অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন বলেন, আইনি কাঠামোর মধ্যে থেকেই কারাভ্যন্তরে খালেদা জিয়ার জন্য আদালত স্থাপন করা হয়েছে। ফৌজদারি কার্যবিধির ৯(২) ধারা অনুযায়ী সরকার যেকোনো স্থানে আদালত বসাতে পারেন।

তিনি বলেন, আইনে বলা হয়েছে, সরকার সরকারি গেজেটে সাধারণ অথবা বিশেষ আদেশ জারি করে নির্দেশ দিতে পারেন যে, যেকোনো স্থানে বা স্থানসমুহে দায়রা আদালত বসবে। এরূপ আদেশ না দেওয়া পর্যন্ত দায়রা আদালত পূর্বের ন্যায় বসবে। কাজেই কোনো অবস্থাতেই বলা যাবে না যে, এটা আইনের মধ্যে নাই।

তিনি বলেন, এরপরও বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা আইনমন্ত্রীর বক্তব্যকে কেন্দ্র করে ঝড় তোলার চেষ্টা করছে। তিনি সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির ব্যানার ব্যবহার করার সমালোচনা করে বলেন, নিতান্তই রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হয়ে সমিতির ব্যানার ব্যবহার করা হচ্ছে। সমিতিকে তারা বিএনপির কার্যালয় হিসেবে ব্যবহার করছে। তারা (বিএনপির আইনজীবীরা) খালেদা জিয়ার বিচারকে প্রলম্বিত করার জন্য চেষ্টা করছে।

আইন-আদালত- এর আরো খবর